আজ মহানবমী

শারদীয় দুর্গাপূজাকে ঘিরে দেশজুড়ে বইছে উৎসবের আমেজ। রাজধানীসহ দেশের পূজা ম-পগুলোতে সকাল থেকে রাত অবধি ভিড় করছেন বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষরা। আজ  বৃহস্পতিবার মহানবমী। সকাল ৯টা ৫৯ মিনিটে বিহিত পূজার মাধ্যমে শুরু হবে এর আনুষ্ঠানিকতা।

পুরাণ মতে, এ দিনে লংকা অধিপতি রাবণ বধের পর নবমী তিথিতে ১০৮টি নীলপদ্ম দিয়ে দেবী দুর্গার পূজা করেছিলেন রামচন্দ্র। তাই আজকের এ মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮টি নীলপদ্মে পূজিত হবেন দুর্গা।

রাজধানীর রামকৃষ্ণ মঠে মহানবমী পূজা শুরু হবে ভোর সাড়ে ৬টায়। এ ছাড়া আজ ম-পে ম-পে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকবে আরতি প্রতিযোগিতা। এ সময় ভক্তরা মেতে উঠবেন নানা ঢঙে আরতি নিবেদনে। থাকবে ঢাক  ঢোল  বাদ্যও।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত জানান, আজ সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে হবে মহানবমী কল্পরম্ভ ও মহানবমী বিহিত পূজা।  পূজা  শেষে  বেলা ১১টা  থেকে ভক্তরা দেবীর চরণে অঞ্জলি দেবেন। দুপুরে বিতরণ করা হবে প্রসাদ।  ১০৮টি নীলপদ্ম, অপরাজিতা ফুল ও যজ্ঞের মাধ্যমে সব পূজাম-পে নবমী বিহিত পূজা সম্পন্ন হবে।

মহানবমী সম্পর্কে ঢাকেশ্বরী মন্দিরের প্রধান পুরোহিত রঞ্জিত চক্রবর্তী জানান, নবমী পূজায় যজ্ঞের মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে আহূতি দেওয়া হয়। এর মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়। এ দিন ভক্তরা মায়ের কাছে  দেশ, জাতি ও বিশ্বের সব জীবের মঙ্গল কামনায় আশীর্বাদ চাইবেন।

গতকাল নারীতেই পরম ঈশ্বরকে দর্শন ও অর্জন হিসেবে বিশ্বাস করে শারদীয় দুর্গোৎসবের অষ্টম তিথিতে কুমারী রূপে দেবী দুর্গার বন্দনা করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। সারাদেশের রামকৃষ্ণ মঠের পাশাপাশি রাজধানীর গোপীবাগে রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠেও কুমারী পূজার আয়োজন করা হয়।
কাল শুক্রবার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে  শেষ হবে পাঁচ দিনব্যাপী এ উৎসব।