আত্মবিশ্বাস ফিরেছে টাইগারদের

প্রস্তুতি ম্যাচে জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাস ফিরেছে টাইগারদের। এবারের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের শুরুতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে পরিষ্কার ২-০তে হার দেখে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টে টাইগাররা ডোবে ৪৩ রানে অলআউটের লজ্জায়। আর দুই টেস্টের চার ইনিংসে বাংলাদেশ দলীয় ১৫০ রানের কোটায় পৌঁছে একবারই। তবে, ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নামার আগে অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন টাইগাররা। বৃহস্পতিবার একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইউনিভার্সিটিস ভাইস চ্যান্সেলরস একাদশের বিপক্ষে চার উইকেটে জয় দেখে বাংলাদেশ।

জ্যামাইকার স্যাবাইনা পার্ক মাঠে ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, রভম্যান পাওয়েল, শ্যাডউইক ওয়াল্টনদের মতো শীর্ষ ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া ক্যারিবীয় একাদশকে বল হাতে ম্যাচের শুরুতেই চাপে ফেলেন টাইগাররা। মোসাদ্দেক হোসেনের স্পিন ভেলকি ও রুবেল হোসেনের গতির ঝড়ের বিপরীতে আগে ব্যাটিং শেষে স্বাগতিক দলের ইনিংস শেষ হয় ২২৭/৯-এ। জবাবে ৩৯ বল ও চার উইকেট হাতে রেখে টার্গেট পার করে টাইগাররা। ৭৫ রানে অপরাজিত থাকেন মুশফিকুর রহীম। ওপেনার লিটন কুমার দাস করেন ৬১ বলে ৭০ রান। অভিজ্ঞ তিন ক্রিকেটার মাশরাফি-সাকিব-তামিমকে ছাড়াই জয় দেখে টাইগাররা। আর জয় শেষে ওপেনার লিটন কুমার দাস বলেন, ‘ওয়ানডে সিরিজের আগে আমাদের প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো করাটা ছিল খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই ম্যাচ থেকে আমরা ভালো কিছু নিতে পেরেছি। যা আমাদের সিরিজে কাজে লাগবে। সব মিলিয়ে এই ম্যাচে আমরা দারুণ ক্রিকেট খেলেছি। আমরা এই জয়ের অনুপ্রেরণা নিয়ে ওয়ানডে সিরিজে খেলবো। নিশ্চিতভাবেই এটা আমাদের আত্মবিশ্বাস দেবে। টেস্ট সিরিজে দলের দ্বিতীয় সর্বাধিক ৭২ রান আসে লিটনের ব্যাট থেকে। আর ওয়ানডে সিরিজ সামনে রেখে লিটন দাস বলেন, ‘আমার জন্য এমন একটা ইনিংস খেলা খুব প্রয়োজন ছিল। চেষ্টা করেছি যতক্ষণ উইকেটে থাকা যায়। মূল ম্যাচে উইকেটে থেকে কীভাবে রান করবো, সেটা মাথায় রেখে ব্যাটিং করেছি। আশা করি সুযোগ পেলে ম্যাচেও এই ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পারবো। জ্যামাইকায় টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নেন মাশরাফি-সাকিবের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দেয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গায়ানায় টাইগাররা তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামছে আগামীকাল।
মোসাদ্দেক হোসেনের স্পিন ভেলকিতে ৮৯ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে চ্যান্সেলর একাদশ। বল হাতে ১০ ওভারের স্পেলে মাত্র ১৪ রানে ৪ উইকেট নেন অফস্পিনার মোসাদ্দেক। পরে ওটলি ও হজের ৯১ রানের জুটিতে লড়াইয়ের পুঁজি পায় স্বাগতিকরা। ওটলি ৫৮ ও হজ করেন ৪৪ রান। মারকুটে ওপেনার ক্রিস গেইল উইকেট খোয়ান ব্যক্তিগত ২৯ রান। বল হাতে ৪০ রানে তিন উইকেট নেন টাইগার পেসার রুবেল হোসেন। জবাবে শুরুতে ধাক্কা খায় বাংলাদেশও। ব্যাট হাতে ‘ডাক’ মারেন ওপেনার এনামুল হক বিজয়। সাব্বির রহমান ৪ ও মাহমুদুল্লাহ করেন ১০ রান। দ্বিতীয় উইকেটে নাজমুল হোসেন শান্ত ও লিটন মিলে স্কোর বোর্ডে যোগ করেন ৯৩ রান। হাতে ব্যথা পেয়ে ব্যক্তিগত ৪১ রানে আহত হয়ে অবসরে যান লিটন। উইকেটে আসেন মুশফিকুর রহীম। দলীয় ১০২ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন শান্ত। তার ব্যাট থেকে আসে ৪৩ রান। ফের মাঠে নেমে দলকে জয় থেকে ১৪ রান দূরে রেখে উইকেট দেন লিটন।