আমিরাতে পথ খুলছে বাংলাদেশি শ্রমিকদের

প্রায় ছয় বছর পর সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের পথ খুলছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি শিগগিরই বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন পদে কর্মী বাছাই প্রক্রিয়া শুরু করবে। এতে করে আমিরাতের বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের বিপুল কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হচ্ছে। এ লক্ষে আমিরাত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

দুবাইয়ের গণমাধ্যম খালিজ টাইমস এক প্রতিবেদনে বলছে, ডোমেস্টিক ওয়ার্কার্স শ্রেনিতে শ্রমিক, নাবিক, ওয়াচম্যান, মেষপালক, হাউজকিপার, বাবুর্চি, আয়া, কৃষক, বাগানকর্মী, প্রাইভেট টিউটর, প্রাইভেট প্রশিক্ষক, ফার্ম সুপারভাইজার ও গাড়িচালকসহ আমিরাত বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন পদের শ্রমিক নেবে।

বুধবার দুপুরে দুবাইয়ে এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়। এসময় সংযুক্ত আরব আমিরাতের মানবসম্পদ বিষয়ক মন্ত্রী নাসের বিন থানি জুমা আল হামলি এবং বাংলাদেশের কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি নমিতা হালদার, রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরানসহ দুই দেশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নাসের বিন থানি বলেন, ‘বন্ধুভাবাপন্ন দেশ দুটির মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। শিগগিরই বাংলাদেশ থেকে কর্মী বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হবে। দুই দেশের আইন ও নীতিমালার ভিত্তিতেই স্মারকটি বাস্তবায়িত হবে।’

সই হওয়া স্মারকে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগের নিয়ম-নীতি নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে গৃহকর্মী নিয়োগের জন্য কাজ করবে সরকার অনুমোদিত তদবীর সার্ভিস সেন্টার। এছাড়া বাংলাদেশের নিবন্ধিত ও সনদধারী রিক্রুটমেন্ট এজেন্সিগুলো কাজ করতে ইচ্ছুক কর্মীদের তালিকা পাঠাতে পারবে।

উল্লেখ্য, সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার। ২০১২ সালের আগস্ট থেকে দেশটিতে বাংলাদেশিদের জন্য সব ধরনের ভিসা বন্ধ রয়েছে।