কার্গোর ধাক্কায় ভৈরব নদে ২জেলে নিখোঁজ, একজনের লাশ উদ্ধার

বালুবাহী কার্গোর ধাক্কায় নৌকা থেকে নদীতে পড়ে নিখোঁজ দুই জেলের মধ্যে সুভাষচন্দ্র রায় নামে (৩৬) একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার গভীর রাতে নগরীর ভৈরব নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আনন্দ বিশ্বাস (৪৫) নামে আরো এক জেলে নিখোঁজ রয়েছে। নিহত সুভাষচন্দ্র রায় নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন গাবতলা স্ট্যান্ড গেট এলাকার মৃত নিতাই চন্দ্র রায়ের ছেলে।
স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে নগরীর খানজাহান আলী থানার গাবতলা স্ট্যান্ড গেট এলাকার দুই জেলে আনন্দ বিশ্বাস ও সুভাষচন্দ্র রায় ভৈরব নদীর নগরঘাট ফেরিঘাটের উত্তর পাশে নদীতে জাল ফেলে নৌকায় ঘুমিয়েছিল। এ সময় খুলনা থেকে যশোরের নওয়াপাড়া অভিমুখী একটি বালি টানা খালি কার্গো নৌকাটিকে ধাক্কা দিলে নৌকা উল্টে ঘুমিয়ে থাকা ওই দুই ছেলে নদীতে পড়ে যায়। রাত ১২টার দিকে খবর পেয়ে নগরীর দৌলতপুর থানা পুলিশ ও দিঘলিয়া উপজেলার ফরমায়েশ ঘাট ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ডুবুরি দল অভিযান চালিয়ে জালে আটকে থাকা অবস্থায় সুভাষচন্দ্র রায়ের লাশ উদ্ধার করে। তবে নিখোঁজ অপর জেলের সন্ধান পাওয়া যায়নি।
দিঘলিয়া উপজেলার ফরমায়েশ ঘাট ফায়ার সার্ভিস স্টেশন কর্মকর্তা মো. কাইমুজ্জামান জানান, সুভাষচন্দ্র রায় নামে এক জেলের লাশ জালে আটকে থাকা অবস্থায় ভৈরব নদী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ অপর আরেক জেলের লাশ উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোস্তাক আহমেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।