কেসিসির ৩ কেন্দ্রের পুন:ভোট আজ, নির্বাচন কমিশনের ব্যাপক প্রস্তুতি

অনিয়মের কারনে বন্ধ হয়ে যাওয়া খুলনা সিটি কর্পোরেশন-কেসিসি’র তিন কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ আজ বুধবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সংরক্ষিত ৯ ও ১০ এবং সাধারণ ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের তিন কেন্দ্রের সর্বমোট ১৮টি কক্ষে ভোটগ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে বাড়তি প্রস্তুতি। তার পরেও ভোটারদের মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতি রয়েছে বলে গতরাতে কয়েকজন জানিয়েছেন। তবে রিটার্নিং অফিসার মো: ইউনুচ আলী জানিয়েছেন যেসব কারণে ১৫ মে ভোট বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল সেইসব কারণ চিহ্নিত করে কমিশনের পক্ষ থেকে বাড়তি প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আজকের ভোটে কোন প্রকার অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির কোন সুযোগ নেই বলেও তিনি জানান।
গত ১৫ মে’র ভোট পর্যালোচনায় দেখা যায়, আজকের পুন:ভোটে সংরক্ষিত ৯ নম্বর ওয়ার্ডে পাঁচজন প্রার্থীর নাম ব্যালটে থাকলেও মূলত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকছেন দু’জন। একজন বিএনপি সমর্থিত মাজেদা খাতুন(আনারস) অপরজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রুমা খাতুন(চশমা)। এ ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী লিভানা পারভীনের ভোটের ব্যবধান স্থগিত ভোটকেন্দ্রের ভোটার সংখ্যার চেয়ে কম থাকায় আ’লীগের অনেকেই স্বতন্ত্র প্রার্থী রুমা খাতুনের পক্ষে কাজ করেছেন। পক্ষান্তরে ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ও ১৫ মে’র নির্বাচনে বিজয়ী কাউন্সিলর মো: শমশের আলী মিন্টুসহ বিএনপি নেতৃবৃন্দ মাজেদা খাতুনের পক্ষে জনসংযোগ চালিয়েছেন। সব মিলিয়ে এ ওয়ার্ডে(সংরক্ষিত-৯) মূলত মাজেদা খাতুন ও রুমা খাতুনের মধ্যেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। এ ওয়ার্ডের ২০২ নম্বর কেন্দ্র অর্থাৎ ইকবাল নগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়(একাডেমিক ভবন-২) কেন্দ্রে পুরুষ ও মহিলা মিলিয়ে মোট ভোটার সংখ্যা ২১২৪টি। ১৫মে’র নির্বাচনে মাজেদা খাতুন পেয়েছিলেন ১২ হাজার ১৯৪ ভোট ও রুমা খাতুন পান ১১ হাজার ৮৬১ ভোট।
অপরদিকে, সংরক্ষিত ১০ নম্বর ওয়ার্ডের আটজন প্রার্থীর ইতোমধ্যেই ছয়জন জামানত হারানোর মত ভোট পাওয়ায় তারাও আজকের ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসছেন না। যে কারণে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী লুৎফুন নেছা(চশমা) ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মিসেস রোকেয়া ফারুকের(হেলিকপ্টার) মধ্যেই হচ্ছে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা। তেমনিভাবে ৩১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডেও ১০ জন প্রার্থীর মধ্যে তিনজন থাকছেন প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। বাকী সাতজনই ১৫ মে’র নির্বাচনে জামানত হারানোর মত ভোট পাওয়ায় ব্যালটে আজ তাদের নাম থাকলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকতে পারছেন না। আজকের পুন:ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকছেন ওই ওয়ার্ডের মরহুম কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন মুক্তার ছেলে মো: আরিফ হোসেন মিঠু(ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), বর্তমান কাউন্সিলর এড. শেখ জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল(টিফিন ক্যারিয়ার) এবং নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস,এম আসাদুজ্জামান রাসেল(ঝুড়ি)।
এ ওয়ার্ডের ২৭৭ নম্বর কেন্দ্র অর্থাৎ লবণচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ২৭৮ নম্বর কেন্দ্র অর্থাৎ ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয় কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা তিন হাজার ৭০৭জন। এর মধ্যে লবণচরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৬ জন মহিলা ভোটার এবং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় কেন্দ্রে ১৬৯১ জন পুরুষ ভোটার রয়েছেন।
রিটার্নিং অফিসার মো: ইউনুচ আলী জানান, আজ বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। ভোটগ্রহণ ও গণণা শেষে স্ব স্ব কেন্দ্রেই ফলাফল ঘোষণা করা হবে। পরে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে পূর্ণাঙ্গ ফলাফল ঘোষণা করা হবে।
আজকের নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্নের লক্ষে গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় রিটার্নিং অফিসারের সম্মেলন কক্ষে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নির্বাচন কর্মকর্তা, ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, পুলিশ, আনসারসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
আজকের নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রেই ২২ জন অস্ত্রধারী পুলিশের পাশাপাশি থাকবেন তিনজন অস্ত্রধারীসহ ১৭ জন আনসার সদস্য। এছাড়া থাকবে র‌্যাবের চারটি মোবাইল টিম, পুলিশের তিনটি মোবাইল টিম ও একটি ষ্ট্রাইকিং ফোর্স, এক প্ল¬াটুন বিজিবি এবং তিন কেন্দ্রে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। এছাড়া বিজিবি’র সাথে একজন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।