খুলনায় করোনায় ও উপসর্গে চারজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৮০

খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা সন্দেহ ওয়ার্ডে করোনার উপসর্গে মৃত্যু হয়েছে চারজনের। রোববার দিবাগত রাত এবং সোমবার এ চারজনের মৃত্যু হয় বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে।
খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের সমন্বয়কারী ডা: শেখ মো: ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল সাতটার দিকে বাবর খান(৫৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি নগরীর টুটপাড়া তালতলা হাসপাতাল রোডের বাসিন্দা। করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি শনিবার রাত আটটার দিকে করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়।
এছাড়া খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার(আরএমও) এবং করোনা সন্দেহ ওয়ার্ডের মুখপাত্র ডা: মিজানুর রহমান বলেন, করোনার উপসর্গ নিয়ে রোববার রাতে ও সোমবার মোট চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এরা হলেন, শেখ আবুল বাশার (৮৫), আকবর (৭০), আ: রহমান (৮০) ও আসাদুজ্জামান(৭৮)।
তিনি বলেন, সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার রামনগর এলাকার বাসিন্দা শেখ আবুল বাশার(৮৫) করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ১৮ জুলাই ওই ওয়ার্ডে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তার নমুনা সংগ্রহ করে খুলনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।
এছাড়া খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কড়াইকাঠির বাসিন্দা আকবর(৭০) সোমবার বিকেল তিনটার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। করোনার উপসর্গ নিয়ে তিনি গত ২৫ জুলাই রাতে ওই ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলেন। তারও নমুনা নিয়ে খুমেক ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে বাগেরহাট সদরের কাড়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা আ: রহমান(৮০) সোমবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। জ¦র ও শ^াসকষ্ট নিয়ে তিনি গত পরশু রোববার রাতে ওই ওয়ার্ডে ভর্তি হন। তার নমুনা সংগ্রহ করে খুমেক পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।
খুলনার আড়ংঘাটা থানাধীন সলুয়া বাজারের বাসিন্দা আসাদুজ্জামান(৭৮) করোনার উপসর্গ নিয়ে রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। শাসকষ্ট নিয়ে তিনি করোনা সন্দেহ ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। তারও নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।
অপরদিকে খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা: মো: মেহেদী নেওয়াজ বলেন, সোমবার খুলনা ল্যাবে ২৭৭টি নমুনা পরীক্ষার পর ৮০ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে খুলনার ৪৬জন, সাতক্ষীরার ২০জন, বাগেরহাটের আটজন, যশোরের একজন, নড়াইলের তিনজন এবং ঝিনাইদহের দু’জন রয়েছেন।