গোপালগঞ্জে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১, আহত ৬০

গোপালগঞ্জে পৃথক দুটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৬০ জন। বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী ও সদর উপজেলার ভোজেরগাতি এলাকায় এসব দূর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকাল ৯টার দিকে মুকসুপুরের বরইতলা থেকে মুকসুদপুর সদরের উদ্দেশে ছেড়ে আসা মা-বাবার দোয়া নামের যাত্রীবাহি একটি লোকাল বাস চাওচা গ্রামের শিশুতলা মোড়ে এলে একটি অটোভ্যানকে সাইড দিতে গেলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারায়। এতে রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে।

খবর পেয়ে মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিস কর্মী এবং স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মুকসুদপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মনোয়ারা বেগমকে (৫০) মৃত ঘোষণা করে।

নিহত মনোয়ারা বেগম দিগনগর ইউনিয়নের বিশ্বম্ভরদী গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার স্ত্রী।

গুরুতর আহত শাহিনা বেগম (৪৫), শেফালী বেগম (৫০), আকমাল শেখ (৬৫), রফিক (৩০), আরিফ (৩৫), আলিম মাতুব্বর (৪০) কে মুকসুদপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

মুকসুদপুর থানার ওসি মোস্তফা কামাল পাশা এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপালগঞ্জ-কোটালীপাড়া ভোজেরগাতি এলাকায় গোপালগঞ্জ আসার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার খাদে পড়ে যায় একটি বাস। এতে অন্ততঃ ২০যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের  গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় কেউ নিহত হয়নি তবে কয়েক জনের অবস্থা গুরুতর।