গোপালগঞ্জ ও বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

গোপালগঞ্জ ও বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। এরমধ্যে রবিবার সকাল ১০টার দিকে গোপালগঞ্জ সদরের ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপিনাথপুর শরীফপাড়ায় দুর্ঘটনায় পলিটেকনিকের এক শিক্ষার্থীসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। অন্যদিকে বগুড়ায় শাজাহানপুর রানীরহাটে সকালে একটি সিএনজি অটো রিকশাকে ট্রাকের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে দুই জন নিহত এবং দুই জন আহত হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপিনাথপুর শরীফপাড়ায় গোপালগঞ্জে যাত্রীবাহী একটি লোকাল বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের ওপর উল্টে গিয়ে পলিটেকনিকের দুইজন নিহত হন। নিহতদের মধ্যে আশিক মোল্যা চন্দ্রদিঘলিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ফুড টেকনোলজি বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। তিনি কাশিয়ানী উপজেলার তিলছড়া গ্রামের আনিস মোল্যার ছেলে। অন্যদিকে নিহত এক বৃদ্ধের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এ ঘটনায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে ঘাতক বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দিয়ে কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করেন উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা। এ সময পুলিশের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম বাস দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীসহ দুইজন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে বগুড়ায় শাজাহানপুর উপজেলার রানীরহাটে রোববার সকালে একটি ট্রাক সিএনজি অটো রিকশাকে ধাক্কা দিলে ঘটনা স্থলে দুই জন নিহত এবং দুই জন আহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রামের বকুল সরকারের পুত্র শ্রী গনেস (৪৫) ও বগুড়া সদরের শশীবদনী এলাকার সালামত আলীর পুত্র রমজান আলী (৬০)।

বগুড়া মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিজ মন্ডল জানান, সকাল সাড়ে ৭টায় নাটোরের সিংড়া বাজার থেকে মাছ নিয়ে একটি সিএনজি বগুড়ায় আসছিল। শাজাহানপুরের রানীর হাটের সন্নিকটে বগুড়া বিপরীত দিতে থেকে একটি ট্রাক সিএনজি অটো রিকশাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে দুইজন নিহত এবং অপর দুইজন আহত হন। নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা আছে।