ডুমুরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় পিতাপুত্রসহ ৪জন নিহত

শনিবার সাড়ে ১২টায় দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ডুমুরিয়ার গুটুদিয়া মাঝের ভেড়ি নামকস্থানে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় বাস-মহেন্দ্র-ভ্যান গাড়ির ত্রি-মুখি সংঘর্ষে পিতা পুত্রসহ ৪ জন নিহত হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ, হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে মহা সড়কের গুটুদিয়া মাঝের ভেড়ি নামক স্থানে পাইকগাছা থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী বাস (ঢাকা মেট্রো-৮০৭৫) সামনে থাকা খুলনাগামী মহেন্দ্রকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয়। ফলে সামনে থাকা গুটুদিয়া গামী ভ্যানকে মহেন্দ্র ধাক্কা দিলে রাস্তার ডান পাশে ছিটকে পড়ে। ভ্যানটি ধাক্কা খেয়ে যাত্রীরা বামপাশে পড়ে যায় এবং পিছনে থাকা বাস ভ্যান গাড়ির চালকসহ যাত্রীদের চাপা দেয়। বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন গুটুদিয়া গ্রামের ভ্যান চালক আছাদুল মোড়ল(৩৫), ডিম বিক্রেতা ও যাত্রী গুটুদিয়া গ্রামের নারায়ন মন্ডল(৬৫), অপর যাত্রী উলা গ্রামের কবির হোসেন সরদার(৩৫) ও তার শিশু পুত্র সজিবুল ইসলাম(৭) গুরুতর আহত অবস্থায় ডুমুরিয়া হাসপাতালে নেয়া হলে সজিবুলকে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত: ঘোষণা। কবিরের অবস্থার অবনতি হলে খুমেক হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছে মহেন্দ্র যাত্রী বাবু শেখ(২৬) শহিদুল ইসলাম(৪০) মহেন্দ্র চালক আমিরুল ইসলাম(২৬), সুলতান হোসেন(৪৫), আফরোজা বেগম(৬০), আঞ্জুয়ারা বেগম(৫০), আতা শেখ(৬৫), দাউদ আলী(৫০), আলতাফ হোসেন খান(৬৫)। এদের মধ্যে ৩ জনকে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের ডুমুরিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনার খবর শুনে ছুটে যান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আশেক হাসান, গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা সরোয়ারসহ সর্বস্তরের মানুষ। এ ঘটনায় আহত ও নিহত দের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে নারী-পুরুষ এক নজরে দেখতে আসেন।