দণ্ডিত মানবতাবিরোধী অপরাধী মাহিদুরের মৃত্যু

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ড পাওয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের মাহিদুর রহমান মারা গেছেন। রোববার দিনগত রাত একটার দিকে তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার হালিমা খাতুন এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, মাহিদুর রাজশাহী কারাগারে বন্দি ছিলেন। বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন। গত ২৮ এপ্রিল অসুস্থ হলে কারাগার থেকে তাকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান মাহিদুর।

ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান এই কারা কর্মকর্তা।

২০১৫ সালের ২০ মে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান মাহিদুর রহমানকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেন।

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে হত্যা, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় ট্রাইব্যুনাল এ সাজা দেন।

মাহিদুর একাত্তরে মুসলিম লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরুর পর রাজাকার বাহিনীতে যোগ দিয়ে তিনি শিবগঞ্জ এলাকায় মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটান।

রায়ে আদালত পর্যবেক্ষণ দেন, আসামি ব্যক্তি হিসেবে হয়তো ক্ষুদ্র। কিন্তু দলগত মানবতাবিরোধী অপরাধে তার ‘গুরুত্বপূর্ণ’ ভূমিকা ছিল।