দাম বেশি নেন, তবু ভেজাল দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

ব্যবসায়ীদেরকে পণ্যে ভেজাল না দেওয়ার অনুরোধ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানসম্মত পণ্য বিক্রিতে প্রয়োজনে তারা বেশি টাকা নিক। তবু যেন ভোক্তাদের ঠকানো না হয়। জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রবিবার দুপুরে রাজধানীর খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন সরকার প্রধান।

খাদ্যে ভেজালকে দুর্নীতি আখ্যা দিয়ে এর বিরুদ্ধে অভিযান চলছে বলেও সতর্ক করেন শেখ হাসিনা।

ব্যবসায়ীদের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনি কেন ভেজাল দিয়ে বিক্রি করবেন? আপনি ভালোটাই বিক্রি করেন। আপনার যে দাম পড়ে আপনি সেই দাম নেন। একটু বেশি লাভ নিতে চান, লাভও নেন। কিন্তু যেটা করবেন, ভালো করেন। খারাপভাবে করে মানুষকে ঠকিয়ে মানুষের জীবন ধ্বংস করা, এটার তো কোন অধিকার কারও নাই।’

‘খাদ্যে ভেজাল দেওয়া এটা আমাদের দেশের কিছু কিছু শ্রেণির এটা বোধহয় তাদের একটা চরিত্রগত বদঅভ্যাস। তাছাড়া আর কিছুই না। এটা বন্ধ করতে হবে। কারণ এই ভেজাল খাদ্য খেয়ে তো মানুষের উপকার হবে না, অপকারই হবে।’

খাদ্যে ভেজাল সরকার মেনে নেবে না জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘খাদ্যে ভেজাল দেওয়া এটাও একটা এক ধরনের দুর্নীতি। কাজেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমরা আমাদের অভিযান চালাচ্ছি। কাজেই এই ভেজালের বিরুদ্ধেও অভিযান চলছে। এটা অব্যাহত থাকবে। এটা আমরা দূর করব। কোন বিষক্রিয়ায় আমাদের দেশের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হোক সেটা আমরা চাই না।’

‘ভেজাল বিরোধী অভিযান চলছে। কিন্তু সেটাকে আরও ব্যাপকভাবে করবার জন্য আমরা আলাদাভাবে কর্তৃপক্ষ করে দিয়েছি এবং সেই কর্তৃপক্ষ মানুষকে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী করবার জন্য যে সমস্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সেগুলো সব নিয়েই এই কর্তৃপক্ষ করে দেওয়া হয়েছে।’

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের লোকবলের সমস্যা আছে জানিয়ে এই সমস্যাও দূর করার কথাও জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘হাটে-ঘাটে মাঠেও যেন এই ভেজালবিরোধী অভিযানটা অব্যাহত থাকে তার ব্যবস্থাও আমরা নিচ্ছি এবং ভবিষ্যতে আমরাও আরও নেব।’