পরিবহন ধর্মঘটে সড়কে যাত্রীদের ভোগান্তি চরমে

দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। পরিবহন শ্রমিকদের আট দফা দাবির লক্ষ্যে আজ রোববার সকাল থেকে দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট শুরু হয়েছে। ধর্মঘটে সড়কে গণপরিবহন না থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন কর্মস্থলগামী মানুষ। রাজধানী ঢাকার গাবতলী, মিরপুর, শাহবাগ, গুলিস্তানসহ প্রায় প্রতিটি জায়গায় সাধারণ মানুষকে গণপরিবহনের জন্য দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।  রাজধানীর রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়ি ও বিআরটিসির কিছু বাস ছাড়া কোনো যানবাহন চলতে দেখা যায়নি। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন লাখ লাখ মানুষ। গণপরিবহন না থাকায় হেঁটেই গন্তব্যের দিকে রওনা দিয়েছেন অনেকে।

সড়ক দুর্ঘটনার সব অপরাধ জামিনযোগ্য করা ও সড়কে পুলিশি হয়রানি বন্ধসহ বেশ কয়েকটি দাবিতে শ্রমিকরা এই ধর্মঘট পালন করছেন। শ্রমিকরা ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের’ ব্যানারে রোববার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ৪৮ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন।

গতকাল শনিবার সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, ‘আমাদের দাবি নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা করতে আগ্রহী। যদি দাবি পূরণ করা হয়, তাহলে আমরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করব।’দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে—সড়ক দুর্ঘটনার সব অপরাধ জামিনযোগ্য করা, পাঁচ লাখ টাকা জরিমানার বিধান বাতিল করা, সড়ক দুর্ঘটনায় গঠিত যেকোনো তদন্ত কমিটিতে ফেডারেশনের প্রতিনিধি রাখা, ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য সর্বনিম্ন শিক্ষাগত যোগ্যতা পঞ্চম শ্রেণি নির্ধারণ এবং সড়কে পুলিশের হয়রানি বন্ধ করা।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর শ্রমিক ফেডারেশন সিদ্ধান্ত নেয়, সড়ক পরিবহন আইন সংস্কারসহ আট দফা দাবি ২৭ অক্টোবরের মধ্যে পূরণ না হলে ২৮ অক্টোবর থেকে দুদিনের কর্মবিরতিতে যাবেন শ্রমিকরা।।