প্রশস্ত হচ্ছে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের স্থল ও নৌপথ

বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের স্থল ও নৌপথ প্রশস্ত করার উদ্যোগ নিয়ে একটি চুক্তির অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের সভায় চুক্তির অনুমোদন দেওয়া হয়।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বাংলাদেশ এবং ভারতের সঙ্গে নৌ প্রটোকল সম্পর্কিত একটি চুক্তির অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। স্বাক্ষরিত এ চুক্তির আর্টিকেল ১১ এ বলা হয়েছে, পোর্ট হিসেবে বাংলাদেশের পানগাঁওকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। অপরদিকে ভারতের আসামের ধুবলিকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এতে প্রশস্ত হয়েছে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের স্থলপথ।

চুক্তির আর্টিকেল ১.২ তে রোডের সঙ্গে পানগাঁও এবং ধুবলিক অন্তর্ভূক্ত করার বিষয়টি বলা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ৮০ ও ২০ শতাংশ খরচ বহনের শর্তে আশুগঞ্জ থেকে এবং সিলেটের জকিগঞ্জ এবং বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জ থেকে এবং ভারতের দইখাওয়া পর্যন্ত মোট ৪৭০ কিলোমিটার নদীপথ খনন বা ড্রেজিং করা হবে।

এ প্রকল্পে বাংলাদেশ সরকার দেবে ২০ শতাংশ খরচ আর ভারত দেবে ৮০ শতাংশ খরচ।

শফিউল আলম বলেন, আর্টিকেল ২৩ এর (১) এ সংশোধন করে বাংলাদেশের ট্রাক, ট্রাকটর এবং ট্রেইলার ভারতের অভ্যন্তরে আগরতলা আইসিবি পর্যন্ত যাতায়াতের সুযোগ তৈরি করা হয়েছে। এর আগে বাংলাদেশি মালামাল আগরতলার আইসিবি পর্যন্ত পৌঁছানোর সুযোগ ছিল না।

‘এক্ই চুক্তিতে আর্টিকেল ২.২ তে নো-ম্যান্স এরিয়ায় বিজিবি এবং বিএসএফ এর সহযোগিতায় দ্বিপাক্ষিক নানা ইস্যুতে একত্রিত হয়ে কাজ করা যাবে মর্মে একটি সংশোধনী আনা হয়েছে,’ যোগ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।