বই উৎসবে সারাদেশ

বছরের প্রথম দিন পাঠ্যপুস্তক উৎসববর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে সারাদেশে একযোগে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবস’ পালন করবে সরকার। আজ মঙ্গলবার প্রথম থেকে নবম শ্রেণির সব শিক্ষার্থীর হাতে বিনামূল্যের নতুন পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হবে। এ বছর বিতরণ করা হবে ৩৫ কোটি ২১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৮২টি নতুন পাঠ্যবই।

কেন্দ্রীয়ভাবে এ বছর শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় রাজধানীর মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে এই বই উৎসবের আয়োজন করে।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের সূচনা করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (২৪ ডিসেম্বর) শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ণ চন্দ্র সাহা বলেন, ‌‘দেশে পাঠ্যবই উৎসব পালনে কোনও ধরনের সমস্যা না হয়, সেজন্য আমরা প্রয়োজনীয় সব বই মুদ্রণ শেষে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৌঁছে দিয়েছি। আশা করছি, বিনামূল্যের এই বই পেতে শিক্ষার্থীদের কোনও সমস্যা হবে না।’

এনসিটিবি তথ্য অনুযায়ী, নতুন শিক্ষাবর্ষে প্রাক-প্রাথমিক স্তরের ৩৪ লাখ ২৮ হাজার ১০ শিক্ষার্থীর জন্য ৬৮ লাখ ৫৬ হাজার ২০টি পাঠ্যপুস্তক দেয়া হবে। এছাড়া প্রাথমিক স্তরের দুই কোটি ৩৭ লাখ ৭ হাজার ১ জন শিক্ষার্থীর জন্য ৯ কোটি ৮৮ লাখ ৮২ হাজার ৮৯৯টি; প্রাক-প্রাথমিক, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পাঁচটি ভাষার ৯৮ হাজার ১৪৪ শিক্ষার্থীর জন্য ২ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮৪টি; মাধ্যমিক স্তরের বাংলা, ইংরেজি ভার্সন, ইবতেদায়ি, দাখিল, দাখিল ভোকেশনাল, কারিগরির এক কোটি ৮৭ লাখ ১৫ হাজার ৯৬০ জন শিক্ষার্থীর জন্য ২৪ কোটি ৬০ লাখ ৫২ হাজার ৬১টি পাঠ্যপুস্তক রয়েছে।

২০১০ সাল থেকে সরকার প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, ইবতেদায়ি, মাধ্যমিক, দাখিল, দাখিল (ভোকেশনাল) ও এসএসসি (ভোকেশনাল) স্তরে বিনামূল্যে পাঠ্যবই দিচ্ছে।

২০১৮ সাল পর্যন্ত সর্বমোট ২৬০ কোটি ৮৬ লাখ ৯১ হাজার ২৯০ কপি পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে বিতরণ করেছে সরকার।