বিয়ের অনুষ্ঠানে সৌদি বিমান হামলা, কনেসহ ২০ নারী-শিশু নিহত

ইয়েমেনে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে সৌদি জোটের বিমান হামলায় অন্তত ২০ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু বলে জানা গেছে। দেশটির উত্তরাঞ্চলে এ মারাত্মক এ বিমান হামলায় নিহতদের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। গার্ডিয়ানের সংবাদ।

ইয়েমেনের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানাচ্ছে, এটি এক সপ্তাহের মধ্যে তৃতীয়বারের মতো সাধারণ নাগরিকদের ওপর বিমান হামলা।

সংবাদ সংস্থা এপিকে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা খালেদ আল-নাধরি জানাচ্ছেন, বনি কায়েস জেলার এক বিয়ের অনুষ্ঠানে জড়ো হওয়া মানুষদের ওপর এ হামলায় নিহতদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। তিনি জানান, এ হামলায় বিয়ের কনেও নিহত হয়েছে।

জমহুরি হাসপাতালের প্রধান মোহাম্মেদ আল-সামালি জানাচ্ছেন, বিয়ের বরসহ অন্তত ৪৫ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য রক্তদানের জন্য স্থানীয়দের প্রতি আহবান করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

হাসপাতালের উপ-প্রধান আলি নাসের আল-আজিব জানাচ্ছেন, আহতদের মধ্যে ৩০ জন শিশুও রয়েছে। বোমার খণ্ডাংশে তাদের দেহের ভেতরে আটকে গেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে দেখা গেছে, হামলায় হতাহতদের দেহাংশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এক বালক নিহত একজনের দেহ জড়িয়ে আহাজারি করছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আবদেল-হাকিম আল কাহলান বলেন, পরবর্তী আরও হামলার আশংকায় ঘটনাস্থলে দ্রুত অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো সম্ভব হয়নি।

এর আগে গত রবিবার হাজ্জা এলাকায় এক বাড়িতে আরেক হামলায় একই পরিবারের পাঁচজন নিহত হয়। তার আগের দিনও যাত্রীবাহী একটি গাড়িতে একই ধরণের বিমান হামলায় ২০ জন সাধারণ নাগরিক নিহত হয়।