ভুল ধরিয়ে দিলে শুধরানোর চেষ্টা করি: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভুল তুলে ধরে সাংবাদিকরা কোনো সংবাদ প্রকাশ করলে মন্ত্রণালয় সেখানে কখনোই প্রতিবাদ করেনি বলে জানিয়েছে মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, ‘আমরা ভুল শুধরাতে চেষ্টা করি। কারণ সংবাদপত্র হলো সমাজের দর্পণ। ’রবিবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলানায়তনে এডুকেশন রিপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভুল-ত্রুটি তুলে ধরে আপনারা কোনো সংবাদ প্রকাশ করলে আমরা কখনোই সেটার প্রতিবাদ করি না। বরং আমাদের ভুল শুধরাতে আপ্রাণ চেষ্টা করি। কারণ যে ভুল ধরিয়ে দেয় সেই প্রকৃত বন্ধু বলে আমি মনে করি।‘

‘সংবাদপত্র হলো একটা সমাজের দর্পণ। এটা সমাজের ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করে সমাজকে আলোকিত করার চেষ্টা করে। তবে সংবাদ হতে হবে সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ, তাতে সমাজ উপকৃত হবে।‘

নাহিদ জানান, শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে নিজের অর্জনকে বড় করে না দেখে বরং ভুলগুলোর দিকে বেশি দৃষ্টি রাখেন। তবে গতানুগাতিক শিক্ষাব্যবস্থা থেকে বের হয়ে কলুষমুক্ত শিক্ষাব্যবস্থাই তার কাম্য। বলেন, ‘আমি যদি মন্দ হই তাহলে আমি সরে যাবো, কারণ আমি প্রকৃত শিক্ষার বিস্তার চাই, যেটা সমাজকে কাজে দেবে। একটা কলুষমুক্ত শিক্ষাব্যবস্থাই আমার কাম্য। দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় আমি সামান্য একজন কর্মীমাত্র, মূল নিয়ামক হলো শিক্ষকরা। যে শিক্ষা আপনি বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করতে পারবেন না সেটা অর্থহীন।‘

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘সাংবাদিকরা হচ্ছে আমাদের শিক্ষা পরিবারের একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ।  কিন্তু ভুল সংবাদ প্রকাশে একজন মানুষের জীবন বিপন্ন হতে পারে। তাই এমন কোনো সংবাদ প্রকাশ করা যাবে না যেটার জন্য কাউকে হেয় প্রতিপন্ন হতে হয়।‘

এডুকেশন  রিপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের অভিষেক অনুষ্ঠান উদ্ভোধন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসেন, এডুকেশন রিপোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমানসহ সংগঠনের নেতারা।