যশোরে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

যশোরের মনিরামপুরে পড়ার টেবিলে চিরকুট লিখে রেখে মহিমা আক্তার সেতু নামে এক কলেজছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার সকালে উপজেলার স্মরণপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে সিলিং ফ্যানের হুকের সঙ্গে ওড়না গলায় পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন সেতু। সেতু ওই গ্রামের নিস্তার আলীর মেয়ে। তিনি ঝিকরগাছা হাজের আলী মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

দুপুর ১টার দিকে খেদাপাড়া ক্যাম্প পুলিশ সেতুর লাশ উদ্ধার করে বিকাল মর্গে পাঠায়। সেতু যাকে উদ্দেশ করে চিরকুটটি লিখেছিল তিনি তার স্বামী মুস্তাফিজুর রহমান অপু। ২০১৬ সালের ১৬ জুন দশম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় পরিবারের অমতে মুস্তাফিজুরকে বিয়ে করে সে। মুস্তাফিজুর একই গ্রামের ফল ব্যবসায়ী আব্দুল মমিনের ছেলে। প্রথম স্ত্রী রেখে মুস্তাফিজুর ৫-৭ দিন আগে ঝিকরগাছার বোদখানা এলাকার একটি মেয়েকে বিয়ে করায় অভিমানে সেতু আত্মহত্যা করেছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

খেদাপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আইনুদ্দিন বলেন, সেতুর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। চিরকুটটি আমাদের হেফাজতে আছে। মুস্তাফিজুরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচণার দায়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।