শ্যামা পূজা আজ

সোহেল মাহমুদ:: শিশিরঝরা হেমন্তের ঘোর অমাবশ্যা তিথিতে আজ মঙ্গলবার দীপাবলির আলোকে উদ্ভাসিত হয়ে উঠবে চারদিক। হিন্দু বিশ্বাসমতে, এই মাহেন্দ্রলগ্নে আবির্ভাব ঘটবে মঙ্গলময়ী জননী কালীদেবীর। আজ মঙ্গলবার দীপাবলি উৎসব ও শ্যামাপূজা। নগরীর কেন্দ্রীয় আর্য ধর্মসভা মন্দিরের প্রধান পুরোহিত শিবু ভট্টাচার্য জানান, পঞ্জিকামতে আজ রাত ১০.৩০ মিনিটে দীপাবলী ও মঙ্গল শিখা প্রজ্বলন এবং রাতে শ্যামা পূজা, অঞ্জলি প্রদান, আরতি। রাত ১২টায় বলিদান শেষে প্রসাদ বিতরণ। বুধবার সন্ধ্যা থেকে দীপাবলি। শান্তি ও মঙ্গল কামনায় মায়ের নিকট অর্ঘ্য নিবেদন এবং রাত ৯.৪৪ মিনিটের পর বিসর্জন। কাল ভাইফোঁটা ও অতিথি আপ্যায়ন ও আরতি।

কেবল হিন্দু নয়, শিখ ও জৈন ধর্মাবলম্বীরাও আজ হাজার প্রদীপ জ্বালিয়ে দীপাবলি উৎসব করবেন। ‘দীপাবলি’ অর্থ প্রদীপের সারি বা আলোক উৎসব। যে প্রদীপের আলোয় দূর হয় সকল অশুভ শক্তি, ঘটে শুভ শক্তির আবির্ভাব। মাতৃ আরাধনার আরেক রূপ হচ্ছে শ্যামা পূজা। অন্ধকার বিনাশের প্রত্যাশায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই দিন ঘরে ও মন্দিরে প্রদীপ প্রজ্বলন করেন। শ্যামা পূজা উপলক্ষে খুলনার পূজাম-পগুলোর প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। খুলনা মহানগর ও জেলায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার ম-পে আজ রাতে শ্যামা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুন্ডু বলেন, নগরীতে দুই’শ পঞ্চাশটির বেশী ম-পে শ্যামা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ইতিমধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। নগরজুড়ে আলোকসজ্জাসহ ম-পসজ্জা শেষ হয়েছে। তিনি জানান, এবছর অন্যান্যবারের চেয়ে আলোকসজ্জাসহ উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে শ্যামা পূজা। তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার রাতে পূজা শুরু হয়ে বুধবার রাতে বিসর্জন হবে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ খুলনা জেলা শাখার সভাপতি কৃষ্ণপদ দাস জানান, এবছর জেলার ৯ উপজেলায় তিন হাজারের বেশী ম-পে শ্যামা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সার্বিক পরিস্থিতি ভালো। তিনি জানান, এবছর দুর্গা পূজা যেমন বেড়েছে শ্যামা পূজার সংখ্যাও তেমন বেড়েছে। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, আইন-শৃঙ্খলা ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি ভালো থাকায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শ্যামা পূজা উদযাপন করছে। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ খুলনা মহানগর জেলা শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সকল শ্রেণি ও পেশার মানুষকে শ্যামা পূজা ও দীপাবলির শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।