সালমান খানের পাঁচ বছরের কারাদণ্ড

কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের মামলায় বলিউড তারকা সালমান খানকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার যোধপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দেব কুমার খতরি এ রায় ঘোষণা করেন। একই সঙ্গে বলিউডের এ তারকাকে ১০ হাজার রূপি জরিমানা করা হয়েছে।

ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম বলছে, রাজস্থানে ২০ বছর আগে ছবির শুটিং চলাকালীন কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বলিউডের ৫২ বছর বয়সী তারকা সালমান খান। ভারতে বিপন্ন এ প্রাণী হত্যা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

একই মামলায় অভিযোগ থেকে অভিনেতা সাইফ আলী খান ও অভিনেত্রী টাবু, সোনালী বেন্দ্রে ও নীলমকে অব্যাহতি দিয়েছে আদালত।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ নিম্ন আদালতে কৃষ্ণসার মামলার চূডান্ত শুনানি শেষ হয়। তখন সালমান খানের আইনজীবী এইচএম সারস্বত দাবি করেন, সরকারি কৌঁসুলি অভিযোগের সাপেক্ষে প্রমাণ সংগ্রহ করতেই পারেননি। মামলা সাজাতে ভুয়া সাক্ষী দাঁড় করিয়েছেন। এমনকি বন্দুকের গুলিতেই যে কৃষ্ণসার দুটির মৃত্যু হয়েছিল, তাও প্রমাণ করতে পারেননি।

১৯৯৮ সালে রাজস্থানের যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিং করতে গিয়ে নায়ক সালমান খান ও অন্যরা দুটি কৃষ্ণসার হরিণ গুলি করে মারেন। সে সময় সালমান ছাড়াও এই মামলায় অন্যান্য অভিনেতা-অভিনেত্রীসহ আরো সাত জনকে আসামি করা হয়।

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৯ (৫১) ধারায় বিচারক সে সময়ই সালমানকে অপরাধী ঘোষণা করেছিলেন। দীর্ঘ ২০ বছর পরে সেই মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে বলিউড সুপারস্টারকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ভারতের যোধপুর আদালত। সূত্র: ইকোনমিক টাইসমস, বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড