সাহিত্যের কবি নজরুল, রাজনীতির কবি শেখ মুজিব : প্রধানমন্ত্রী

জাতীয় কবি নজরুল ইসলামকে সাহিত্যের কবি আর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে রাজনীতির কবি উল্লেখ করে প্রধনামন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলার ইতিহাসের এই দুজন ক্ষণজন্মা ব্যক্তিত্বের চরিত্রে ছিল দারুণ মিল। শনিবার দুপুরে পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ সমাবর্তনে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সম্মানসূচক ডিলিট প্রদান করে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়। সম্মানসূচক এ ডিলিট ডিগ্রি সমগ্র বাঙালি জাতিকে উৎসর্গ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ সম্মান শুধু আমার নয়, সব বাঙালির।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ফরিদপুরে বিদ্রোহী কবির সঙ্গে বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেখা ও কথা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বয়সে তখন ছিলেন তরুণ। বাংলার ইতিহাসের এই দুজন ক্ষণজন্মা ব্যক্তিত্বের চরিত্রে ছিল দারুণ মিল। একজন ছিলেন সাহিত্যের কবি আর অন্যজন ছিলেন রাজনীতির কবি।

শেখ হাসিনা বলেন, চিন্তাচেতনা ও জীবনদর্শনের দিক থেকে কাজী নজরুল ইসলাম ও আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবস্থান একই মেরুতে। উভয়েই শোষণ ও বঞ্চনামুক্ত একটি অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণের স্বপ্ন দেখতেন।

জয় বাংলা কবিতার স্লোগান জাতির পিতা কবি নজরুলের কবিতা থেকে গ্রহণ করেছিলেন বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাঙালির সব আন্দোলন সংগ্রামে প্রেরণা ছিলেন কবি কাজী নজরুল ইসলাম। তিনি ছিলেন অসম্প্রদায়িক। তার সেই অসম্প্রদায়িক চেতনার আলোকেই বাংলাদেশকে গড়ে তোলার চেষ্টা চলছে।