সুন্দরবনের দস্যু বাহিনীর সাবেক ৫৭ সদস্য কারামুক্ত

আত্মসমর্পণের ১৩ দিনের মাথায় বাগেরহাট জেলা কারাগার থেকে মঙ্গলবার মুক্ত হয়েছেন সাবেক দস্যু বাহিনীর ৫৭ সদস্য। দীর্ঘদিনের দস্যুতার জীবন ছেড়ে স্বাভাবিক ও সুন্দর জীবনের প্রত্যয় নিয়ে গত ২৩ মে খুলনার লবণচরায় র‌্যাব-৬ কার্যালয়ে সুন্দরবনের ছয় কুখ্যাত জলদস্যু-বনদস্যু বাহিনীর ৫৭ সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁনের কাছে অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেন। মঙ্গলবার বাগেরহাট জেলা জজ আদালতে তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর হয়। পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগে পরিবার পরিজন নিয়ে স্বাভাবিকভাবে ঈদের আনন্দ উপভোগের সুযোগ পেয়ে সাবেক এই দস্যু সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যরা মহাখুশি। স্বাভাবিক জীবনের আশা নিয়ে আপন ঠিকানায় ফিরেছেন তারা।

মুক্তি পাওয়া সদস্যরা হলেন দাদা ভাই বাহিনীর প্রধানসহ ১৫ জন, হান্নান বাহিনীর প্রধানসহ ৯ জন, আমির আলী বাহিনীর প্রধানসহ সাতজন, সূর্য বাহিনীর প্রধানসহ ১০ জন, ছোট সামছু বাহিনীর প্রধানসহ ৯ জন ও মুন্না বাহিনীর প্রধানসহ ৭ জন।

গত ২৩ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও র‌্যাব মহাপরিচালকের কাছে অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দিয়ে তারা আত্মসমর্পণ করেন। এসময় ৫৮টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১২৮৪ রাউন্ড গুলি জমা দেন বনদস্যু বাহিনীর সদস্যরা।