সুস্থ থাকতে হলে মেনে চলুন এই পরামর্শগুলি

সুস্থ থাকতে কে না চায়? তবে তার জন্য মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হবে না। বরং চিরচরিত কয়েকটি ধ্যানধারণা একটু পাল্টে ফেলুন।
ক্লান্ত হলেও ব্যায়াম করুন। বা গরমকালে কোল্ড কফিতে চুমুক না দিয়ে হট কফি পান করুন।
ক্লান্ত হয়ে পড়লে বিশ্রাম করার পরামর্শ দেন অনেকেই। তবে আর তা করবেন না। বরং একটু ব্যায়াম করে নিন। দেখবেন ক্লান্তি ভাবটা পালিয়ে যাবে। শারীরিক কসরতের ফলে ফিরে পাবেন এনার্জি। মাত্র আধ ঘণ্টার হাল্কা ব্যায়ামই যথেষ্ট। তাতেই দূর হবে ক্লান্তি।
খাতা-কলমের বদলে আজকাল অনেকেরই কম্পিউটার বা ল্যাপটপের কি-বোর্ডে হাত চলে বেশি। তবে এই রুটিনে একটু বদল ঘটান। কি-বোর্ডের বদলে মাঝে-মধ্যে ফিরে যান পুরনো অভ্যাসে। গবেষকদের একাংশের দাবি, কম্পিউটার-ল্যাপটপ বা মোবাইল স্ক্রিনের বদলে হাতে লেখা বিষয় মস্তিষ্কের পক্ষে গ্রহণ করা অনেক সহজ। ফলে তা সহজেই শেখা হয়ে যায়।
একটু ফুরসত মিললেই সঙ্গীর সঙ্গে সময় কাটানো পছন্দ করেন? এ বার থেকে সেই অভ্যাসে খানিকটা বদল ঘটান। ব্যস্ত রুটিনের ফাঁকে নিজের জন্যও কিছুটা সময় বার করে নিন। বই পড়ুন, সিনেমা দেখুন, গান শুনুন বা একা একাই কোনও ক্যাফেতে গিয়ে বসুন। এতে নিজের সঙ্গে খানিকটা সময় কাটানো হবে।
ওজন কমাতে অনেকেই ডায়েট ড্রিঙ্ক পছন্দ করেন। তবে গবেষকদের দাবি, এতে লাভের থেকে লোকসানই হয়। রেগুলার ড্রিঙ্কের তুলনায় এতে আপনার শরীরে অনেক বেশি ক্যালোরি ঢোকে। ফলে ওজন কমার বদলে তা বেড়ে যায়।
এই ঘামঝরা দিনে অনেকই হট কফির বদলে কোল্ড কফি পান করতে পছন্দ করেন। তবে গবেষকরা জানান, এই আবহাওয়ায় এর উল্টোটাই করুন। হট কফি পান করলে ঘাম ঝরে তা শরীরের তাপ অনেকটাই কমিয়ে দেয়।
খাওয়ার পরেই সঙ্গে সঙ্গে ব্রাশ করবেন না। বিশেষ করে যদি, টোম্যাটো বা লেবু রয়েছে এমন কোনও অ্যাসিডিক ফুড খান। এই ধরনের খাবারে থাকা অ্যাসিড দাঁতের এনামেল নরম করে দেয়। অ্যাসিডিক খাবার খেয়ে কিছু ক্ষণ অপেক্ষা করুন। এর পর ব্রাশ করুন। তাতে দাতের এনামেল ঠিক থাকবে।