সোমবার সারাদেশে বিক্ষোভ ডেকেছে বিএনপি

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা পেয়ে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তার চিকিৎসার দাবিতে সোমবার বিক্ষোভ ডেকেছে দলটি।

শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

কর্মসূচি অনুযায়ী সোমবার ঢাকা মহানগরসহ দেশের সব মহানগর, থানা ও উপজেলা সদরে বিক্ষোভ করবে দলটি।

সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসা নিশ্চিতের দাবি জানিয়ে রিজভী বলেন, ‘দেশনেত্রী এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ছাড়া এদেশে কোনো জাতীয় নির্বাচন হবে না। জনগণ হতে দেবে না।’ এজন্য নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পথ সুগম করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ, মানববন্ধন, কালো পতাকা প্রদর্শনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। প্রতিটি কর্মসূচিই ছিল ‘শান্তিপূর্ণ’।

রায়ের দিন মির্জা ফখরুল জানান, খালেদা জিয়া তাদেরকে হঠকারী কোনো কর্মসূচি দিতে নিষেধ করেছেন। এ কারণেই ‘শান্তিপূর্ণ’ কর্মসূচি পালন করবেন তারা। রায়ের পরে বিএনপি সারাদেশে যত কর্মসূচি পালন করেছিল এসব কর্মসূচির হাতে গোনা কয়েকটি জায়গা ছাড়া দলটি সব কর্মসূচিই নির্বিঘ্নে পালন করেছে।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে রিজভী বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই আপনার জুলুম-নির্যাতন করার দিন ফুরিয়ে এসেছে। আপনার কারণেই মানুষ সংজ্ঞাহীন, মৃত্যুর দোলাচলে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ।