স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর ফাঁসি

কুষ্টিয়ার মিরপুরের গৃহবধূ রহিমা খাতুন হত্যা মামলায় স্বামী লিয়াকত আলীকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুষ্টিয়ার জেলা দায়রা ও জজ আদালত (নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল)-এর বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান এ রায় দেন। এ রায় ঘোষণার সময় আসামি লিয়াকত আলী পলাতক ছিল।

আদালত সুত্র জানায়, ২০০৭ সালের ১৪ সেপ্টেম্বার চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার শেখপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে রহিমা খাতুনকে তার স্বামীর বাড়ি সদরপুরে গভীর রাতে নির্যাতন করে হত্যা করে বাড়িতে রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়। ঘটনার পরের দিন কুষ্টিয়ার মিরপুর থানায় মেয়ের বাবা আব্দুল করিম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন।

দীর্ঘ শুনানি শেষে আজ বিচারক আসামির অনুপস্থিতি ফাঁসির আদেশ ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার করে।

দণ্ডপ্রাপ্ত লিয়াকত কুষ্টিয়ার মিরপুরের আমলা-সদপুরের বাদশা মিস্ত্রির ছেলে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন গিয়াস উদ্দিন এবং সরকারি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন নারী ও শিশুর পিপি আকরাম হোসেন দুলাল।