খুলনা সিটিতে প্রার্থীদের মুখে জাতীয় নির্বাচন

বৈশাখের শেষ সময়ের তাপদাহের মধ্যে খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র পদপ্রার্থীদের প্রচারণা থেমে নেই। হাতেগোনা যে ছয় দিন প্রচারণার সময় রয়েছে, তাতে সব এলাকায় প্রার্থীরা যেতে পারেবেন না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

অন্যদিকে, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থীরা দাবি করেছেন, নিজেদের বিজয়ের মধ্য দিয়ে আগামী সংসদ নির্বাচনে দলের বিজয় সুনিশ্চিত হবে।

মঙ্গলবার সকালে নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার বয়রা থেকে প্রচারণা শুরু করেন বিএনপি মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। এ সময় তাঁর সঙ্গে ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। শুধু করমর্দন নয়, ভোটারকে জড়িয়ে ধরে ভোট নিশ্চিত করতে চাইছেন মঞ্জু।

নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, প্রতিকূল আবহাওয়ায় নির্বাচন করা কঠিন। মেয়র প্রার্থীদের নির্বাচনী যে বাজেট নির্ধারণ করা হয়েছে, তা সঠিক নয় বলেও মন্তব্য করেন। মঞ্জু বলেন, জনগণ আওয়ামী লীগকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। জনগণ চায়, আবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। আরেকবার ৫ জানুয়ারির মতো বিনা ভোটের নির্বাচন জনগণ মেনে নেবে না এবং আগামী সংসদ নির্বাচনের আভাস এ নির্বাচনে প্রতিফলিত হবে।

 

অন্যদিকে, সকালে নগরীর ২০ নম্বর ওয়ার্ডের দেবেন বাবু রোড থেকে প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক। এ সময় তাঁর সঙ্গে স্থানীয় ১৪ দলের নেতাকর্মীর ছিলেন।

তালুকদার আবদুল খালেকও বলেন, নির্বাচনী প্রচারণার সময় এবং ব্যয় নির্ধারণ সঠিক হয়নি। তিনি বলেন, এ সময়ের মধ্যে তাঁর পক্ষে ৩১টি ওয়ার্ডে যাওয়া সম্ভব হবে না।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে খালেক বলেন, দেশে যেভাবে উন্নয়নকাজ হয়েছে, পদ্মা সেতু নির্মাণ হয়েছে, তাতে শেখ হাসিনাই চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হবেন। তিনি আরো বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায়, তখন দলটির তৎকালীন মেয়র শেখ তৈয়েবুর রহমান কোনো প্রকল্প আনতে পারেননি।

জাতীয় পার্টি মেয়র প্রার্থী এস এম শফিকুর রহমান খোলা জিপে স্বজনদের নিয়ে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে প্রচারণা চালান। গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার মিজানুর রহমান বাবু এবং ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী মো. মুজ্জাম্মিল হকও প্রচারণায় অংশ নেন।