30 মার্চ 2017

ব্যবসায়ীদের ধর্মঘটে দোকানপাট বন্ধ

161102-shop stikeখুলনানিউজ.কম:: প্যাকেজ ভ্যাট পুনর্বহাল ও বিভিন্ন পর্যায়ে ভ্যাট কর্মকর্তাদের হয়রানির প্রতিবাদে বুধবার রাজধানীতে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরাম। এরই ধারাবাহিকতায় রাজধানীর গুলিস্তানে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম মার্কেট, মওলানা

ভাসানী স্টেডিয়াম মার্কেট, সুন্দরবন স্কয়ার, নবাবপুর রোডের ইলেকট্রিক মার্কেট, তাঁতিবাজার, বাবুবাজারের দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। তবে রাজধানীর মতিঝিল, রামপুরা, মালিবাগ, মৌচাক, খিলগাঁও এলাকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এ ধর্মঘটেরর প্রভাব পড়েনি।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম মাকের্টের ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম বলেন, সরকার বড় লোকদের কাছ থেকে ভ্যাট আদায় না করতে পেরে বাজেটের অর্থ আদায়ে আমাদের শোষণ করতে চাচ্ছে, যা কখনো সম্ভব নয়।

তাঁতিবাজার এলাকার রিমি স্টলের কর্ণধার ফরিদ উদ্দিন বলেন, ‘প্যাকেজ ভ্যাট ইস্যুতে ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরামের সাথে আমরাও একমত। রাজস্ব বোর্ডকে আরো সতর্ক হওয়া উচিত। আমাদের ওপর চাপ বাড়লে তা দেশের অর্থনীতিতে বিরূপ প্রভাব ফেলবে।’

এদিকে গুলিস্তান মাকের্টের রেডি্মেড গার্মেন্টস ব্যবসায়ী সেলিম দেওয়ান বলেন, ‘আমরা ছোট ব্যবসায়ী, বিক্রির টাকা দিয়ে সংসার চালাতেই কষ্ট হয়। নতুন করে ভ্যাট বাড়লে রাস্তায় বসতে হবে।’

এদিকে কুমি্ল্লা থেকে আসা ব্যবসায়ী জাহিদ মোস্তান বলেন, ‘আমি কিছু ইলেকট্রিক পণ্য কিনতে এইচ টি ইলেকট্রিক মার্কেটে এসেছি। কিন্তু মার্কেট বন্ধ থাকায়,  বিপদে পড়ছি। একই আভিযোগ করলেন মুন্সিগঞ্জের ব্যবসায়ী তাহের মো্ল্লা।’

এর আগে ব্যবসায়ী ঐক্য ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আবু মোতালেব হোসেন জানান, ট্যাক্স-ভ্যাট আদায়ের নামে এনবিআরের মাঠ কর্মকর্তাদের হয়রানির বিরুদ্ধে আমরা সবসময়ই বলে আসছি। এ বিষয়ে এনবিআর আমাদের কাছে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব চেয়েছিল। আমরা তা দিয়েছি, কিন্তু কোনো ফল হয়নি। তারা ভ্যাট আদায়ের নামে আমাদের হয়রানি করছে।

তিনি বলেন, ‘ভ্যাট ফাঁকির নামে আমাদের দোকানের ফাইলপত্র জব্দ করে এনবিআর। আবার কিছু টাকা দিলে তা ফেরত দেয়। আমরা আর এসব অনাচার সহ্য করবো না। আমরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হচ্ছি।’

// ০২-১১-২০১৬ //