25 জুন 2017

দলিতদের জীবনযাত্রা নিয়ে খুবিতে দু’দিনব্যাপী চিত্রপ্রদর্শনীর উদ্বোধন

170614-Khulna University-1খুলনানিউজ.কম:: বুধবার কবি জীবনানন্দ দাস একাডেমিক ভবনের মাল্টিপারপাস কক্ষে লিভ অন দলিত বিহাইন্ড শীর্ষক দুদিনব্যাপী এক চিত্র প্রদশর্নী শুরু হয়েছে। সকাল ১০ টায় ফিতা কেটে এ প্রদর্শনীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপাচার্য প্রফেসর ড.

মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। এর আগে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রিসার্চ এন্ড ডিভেলপমেন্ট কালেক্টিভ (আরডিসি) এর চেয়ারপার্সন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক প্রখ্যাত গবেষক ড. মেজবাহ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনপর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান।

তিনি বলেন সামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে হলে সব মানুষকে একই ¯স্রোতে আনতে হবে। সমাজের কোনো অংশকে পেছনে রেখে সুষম উন্নয়ন সম্ভব নয়।

তিনি বলেন সমাজে বঞ্চিত দলিত শ্রেণির মতো অসংখ্য মানুষ রয়েছে। কিন্ত আমরা যারা সমাজের উঁচু স্তরে আছি,ভালো অবস্থায় আছি তারা তাদেরকে ভিন্ন চোখে দেখি। আসলে এটা মানসিক ব্যাপার। আগে আমাদের মনননের জায়গাটা ঠিক করতে হবে। তিনি দলিতদের নিয়ে এ চিত্র  প্রদর্শনীর আয়োজনের মাধ্যমে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগের প্রশংসা করেন।

তিনি এমন একটি অতীব গুরত্বপূর্ণ সামাজিক বিষয়ে কাজ করার জন্য, সমাজের সামনে ইস্যু হিসেবে দাঁড় করার জন্য, চোখের সামনে বৈষম্য তুলে ধরার কাজে নিবেদিত থাকায় প্রখ্যাত গবেষক প্রফেসর ড. মেজবাহ কামালকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলা ও মানবিক স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. সাবিহা হক এবং  চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. আহমেদ আহসানুজ্জামান।

অনুষ্ঠানের প্রারম্ভিক বক্তব্যে প্রফেসর ড. মেজবাহ কামাল সংক্ষেপে বলেন সমাজে দলিত শ্রেণি কয়েক হাজার ভাগে বিভক্ত রয়েছে। সমাজে এখনও তারা অস্পৃশ, দলিত, বঞ্চিত।  নানাভাবে নিষ্পেষিত। সংবিধান তাদের নাগরিক হিসেবে সমানভাবে সকল অধিকার ভোগ করার ও মর্যাদা দিলেও সমাজ তাকে বঞ্চিত করছে।

এক শ্রেণির মানুষ তাদের ভিন্ন চোখে দেখেন। মানুষ হিসেবে,মানবিক মর্যাদার ক্ষেত্রে, রাষ্ট্রের সুবিধাভোগের অনেক ক্ষেত্রে  তাঁরা বঞ্চিত। এ প্রসঙ্গে তিনি নানা তথ্য ও উদহারণ দিয়ে বলেন এই সভ্য সমাজ নানাভাবে উৎকর্ষ সাধন করলেও দলিতদের প্রতি সে সমাজের মানুষের আচরণ খুবই দুঃখজনক,অমানবিক ও হতাশার। এই পিছিয়ে থাকা জনগেষ্ঠিকে এগিয়ে না নিলে সমাজ পরিপূর্ণভাবে এগোবে না।

তিনি বলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষার্থীর তোলা ফটোগ্রাফিতে দলিতদের জীবনযাত্রার যে চিত্র ফুটে উঠেছে তা দেখেই তাদের করুণ অবস্থা বোঝা যায় । সমাজকে সচেতন করতে এ ধরণের প্রদর্শনীর গুরুত্ব রয়েছে।

এই প্রদর্শনীতে দলিত সম্প্রদায়ের  অর্ধশতাধিক চিত্র স্থান পেয়েছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষার্থী মৃত্তিকা কামাল এবং উজান রহমান এ ছবিগুলো দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের ক্যামেরায় তুলেছেন। প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত। আগামীকাল সন্ধ্যায় এ প্রদর্শনী শেষ হবে।

// ১৪-০৬-২০১৭ //