25 জুন 2017

কাঁকড়া চাষ করে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে হবে; মৎস্য প্রতিমন্ত্রী

170603-dumuria-mpখুলনানিউজ.কম:: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ বলেছেন, কাঁকড়া চাষ করে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে হবে। অল্প জায়গায় কাঁকড়া চাষ করা যায়। মাছ চাষের পাশাপাশি কাঁকড়া ও কুচিয়া চাষের উপর গুরুত্ব দিচ্ছে বর্তমান সরকার।

দ্বিতীয় বৈদেশিক মুদ্রা আসে মৎস্য খাত থেকে। তিনি আজ দুপুরে খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলা মৎস্য অফিস ভবন কাম-ট্রেনিং সেন্টারে কাঁকড়া মোটাতাজাকরণ বিষয়ক তিন দিনব্যাপী চাষী প্রশিক্ষণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুধ, ডিম ও মাংসের চাহিদা পূরণে সরকার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন মাছ হবে এদেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের প্রধান হাতিয়ার। তাঁর স্বপ্ন ছিলো দেশকে একটি ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়া। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বা¯তবায়ন করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছে।  

তিনি আরও বলেন, দেশে দারিদ্র্যতার হার ৪৪ ভাগ থেকে ২২ ভাগে নেমে এসেছে। এছাড়া মাথাপিছু আয় বেড়েছে ১৬০০ ডলারে। দেশ সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ২০২১ সালের মধ্যে দেশ মধ্যম আয়ের দেশে উপনিত হবে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা মৎস্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় উপপরিচালক রণজিৎ কুমার পাল, ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশেক হাসান, কাঁকড়া ও কুচিয়া চাষ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড.বিনয় কুমার চক্রবর্তী এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহসভাপতি শাহ নেওয়াজ হোসেন জোয়াদ্দার।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ শামীম হায়দার এতে সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তৃতা করেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা সরোজ কুমার মিস্ত্রী। এসময় খর্ণিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ দিদারুল হোসেন দিদার উপস্থিত ছিলেন। ডুমুরিয়া উপজেলা মৎস্য অফিস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

সকালে প্রতিমন্ত্রী ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর কর্তৃক বরাদ্দ কৃত ২৮ জন দুস্থ ও ৩ টি প্রতিষ্ঠানের মাঝে ৫৭ বান ঢেউটিন এবং তিন হাজার টাকা করে  মোট ১ লাখ ৭১ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন। পরে তিনি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ব¬ু-কোল্ড কর্মসূচীর আওতায় কৃষি উৎপাদনের সংগঠিত কৃষক দলের কৃষি কার্যক্রমের উন্নয়নের জন্য ‘দল সহায়তা প্যাকেজ’ এর আওতায় ১৮ জনের মাঝে ২০ হাজার টাকা করে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকার অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন।

এসময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার অসহায় ও দুস্থ গরীব মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের সাধারণ মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের জন্য সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে তা  বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। দেশে একটি পরিবারও গৃহহীন থাকবে না। পরে তিনি ডুমুরিয়া উলা মৈখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের স্থান পরিদর্শন করেন।
// ডুমুরিয়া, খুলনা: ০৩.০৬.২০১৭ //