26 মে 2017

খুলনায় হচ্ছে দেশের সর্ববৃহৎ নৌযান মেরামত কারখানা ও ট্রেনিং ইন্সটিটিউট

এ এইচ হিমালয়:: নগরীর কাস্টমঘাট এলাকায় দেশের সর্ববৃহৎ নৌ-যান মেরামত কারখানা নির্মাণ করতে যাচ্ছে সরকার। এর পাশেই নির্মাণ হবে নৌযান প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট। সরকারের যানবাহন অধিদপ্তর এটি নির্মাণ করবে। এজন্য নদীর তীরের রকি ডকইয়ার্ড থেকে ৬০০ মিটার দৈর্ঘ্যরে প্রায় তিন একর জায়গা ৯৯ বছরের জন্য ইজারা দেওয়া হয়েছে।

গত ১৭ এপ্রিল এই ইজারা দলিলে স্বাক্ষর করেছেন খুলনার জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান ও যানবাহন অধিদপ্তরের পরিচালক মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ। ওই দিনই জমির দখল তাদের বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসন থেকে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরেই নৌযান মেরামত কারখানা ও একটি আধুনিক নৌযান প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট নির্মাণের জন্য জায়গা খুঁজছিলো সরকার। গতবছর যানবাহন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা খুলনা সফরের সময় কাস্টমস এলাকার সরকারি খাস জমিতে প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটটি নির্মাণের প্রস্তাব দেন। জেলা প্রশাসন এ বিষয়ে ইতিবাচক সাড়া দিলে ওই এলাকার ৩ একর জায়গায় যানবাহন অধিদপ্তরের নামে বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। গত ৩০ নভেম্বর ভূমি মন্ত্রণালয় অকৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত নীতিমালা মোতাবেক কেন্দ্রীয় কারখানা নির্মাণের লক্ষ্যে সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের অনুকূলে বরাদ্দ দেয়।
সূত্রটি জানায়, অনুমোদনের পর এই জমি হস্তান্তরের জন্য তৎপরতা শুরু করে সরকারি যানবাহন অধিদপ্তর। ভৈরব নদীর পাড়ে অবস্থিত টুটপাড়া  মৌজার এই জমির দাম রয়েছে ৫৭ কোটি ৩২ লাখ ৭৩ হাজার টাকা। কিন্তু মাত্র এক লাখ এক হাজার টাকা প্রতীকি  মূল্যে সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের অনুকূলে জমিটুকু হস্তান্তর করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে পরিবহন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা  মোতাবেক এখানে একটি আধুনিক নৌযান মেরামত কারখানা এবং অত্যাধুনিক প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মতো একটি ভালো কাজের শুভ সূচনা হলো। অচিরেই এটির নির্মাণ কাজ শুরু হবে।
খুলনার জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান বলেন, দেশের সর্ববৃহৎ নৌ-যান মেরামত কারখানা খুলনায় নির্মাণ হবে-এটা খুলনাবাসীর জন্যও গর্বের  বিষয়। এর পাশেই নির্মাণ হবে নৌযান প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট। এতে খুলনার ছেলে-মেয়েরা এই বিষয়ে লেখাপড়া শিখে এই সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে।

// ১৯-০৪-২০১৭ //