24 মে 2017

নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনা পর্যালোচনা সভা

170515-Kccখুলনানিউজ.কম:: খুলনা মহানগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এক পর্যালোচনা সভা সোমবার সকাল ১০টায় নগরীর হোটেল সিটি ইন্-এ অনুষ্ঠিত হয়। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এসএনভি নেদারল্যান্ডস ডেভেলপমেন্ট

অর্গানাইজেশনের সহযোগিতায় খুলনা সিটি কর্পোরেশন এ পর্যালোচনা সভার আয়োজন করে।  কেসিসি’র বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর কে এম হুমায়ুন কবীর-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সিটি মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কেডিএ) চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহসানুল হক মিয়া।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিটি মেয়র নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ নিশ্চিত করতে খুলনা সিটি কর্পোরেশন সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে উল্লেখ করে বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ গড়ে তুলতে আধুনিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, দ্রুত নগরায়ন ও জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে যার শিকার হচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

এ জন্য কেসিসি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টয়লেট এবং সেফটিক ট্যাংকগুলিতে স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। এ উদ্যোগ বাস্তবায়নে তিনি শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষক ও পরিচালনা পর্ষদের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় কেডিএ চেয়ারম্যান বলেন, সম্মিলিত প্রচেষ্টায় খুলনাকে স্বাস্থ্যসম্মত ও পরিবেশ বান্ধব নগরীতে পরিণত করতে হবে। কেডিএ নগরীতে স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ গড়ে তুলতে ভবন নির্মাণের প্লানে সেফটিক ট্যাংক রাখার বিষয়টি বাধ্যতামূলক করেছে।

তিনি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিষয়ক শিক্ষাদান ও স্বাস্থ্য সচেতন করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এছাড়া কেডিএ পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাত-মুখ ধোয়ার শর্ত পূরণ সাপেক্ষে স্কুলে প্রবেশ করতে দেয়া হয় বলে উল্লেখ করেন।

সভায় নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ, বছরে অন্তত একবার সেফটিক ট্যাংক পরিস্কার এবং হাত ধোয়া সহ ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য পরিচর্যায় শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য সচেতন শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

পর্যালোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে কেসিসি’র শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ্যাড. জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল, সচিব মোঃ ইকবাল হোসেন, কেডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী কাজী মোঃ সাবিরুল আলম, প্রাথমিক শিক্ষা-খুলনার উপ-পরিচালক মোঃ ওয়ালিউল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর-খুলনার বিভাগীয় শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাঃ ফজলে রহমান, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রেজাউল ইসলাম, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রমেন্দ্র নাথ পোদ্দার,

খুলনা কলেজিয়েট গার্লস স্কুল এন্ড কেসিসি ইউমেন্স কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ তৌহিদুজ্জামান, খুলনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ আমিনুর রহমান সরকার, কেসিসি’র স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার হালদার, কঞ্জারভেন্সী অফিসার মোঃ আনিসুর রহমান, খুলনা থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মোমিন,

প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম, এসএনভি’র টীম লিডার রাজীব মুনানকামি, গভর্ণন্যান্স এডভাইজার সহিদুল ইসলাম, প্রকৌশল এ্যাডভাইজার মোঃ শহিদুল ইসলাম, বিসিসি এ্যাডভাইজার এস এ এম হুসাইন, বিজনেস এ্যাডভাইজার তানভীর আহমেদ চৌধুরী, নলেজ ম্যানেজমেন্ট এ্যাডভাইজার মাহবুবা ইসলাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন।

// ১৫-০৫-২০১৭ //