25 এপ্রিল 2017

তেরখাদায় বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু

খুলনানিউজ.কম:: সোমবার বেলা ১টার দিকে তেরখাদা-খুলনা সড়কের নেবুদিয়া নামক স্থানে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে অয়েশা খাতুন(২২) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছে। পুলিশ ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালের দিকে

আয়েশা খাতুন ব্যক্তিগত কাজে তার বাবার বাড়ি থেকে দেবরের মটর সাইকেলের পিছনে বসে খুলনায় যায়। খুলনা থেকে তেরখাদায় ফেরার পথে বেলা ১টার দিকে নেবুদিয়া পঞ্চপল্লী আতিয়ার রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অদূরে পৌঁছালে খুলনাগামী একটি বাসকে পাশ কাটাতে গিয়ে বাসের সাথে ধাক্কা লেগে আয়েশা খাতুন সড়কের ওপর পড়ে যায়। এ সময় সে বাসের পিছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনা স্থলেই নিহত হয়। দুর্ঘটনার সাথে সাথেই মটর সাইকেল চালক সটকে পড়ে। ওই সময় মুসলধারে বৃষ্টি হচ্ছিল। এ ঘটনার খবর পেয়ে তেরখাদা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে যান। তিনি জানান, মটর সাইকেল চালক আয়েশার চাচাতো দেবর। আয়েশা তার দেবরের সাথে ব্যক্তিগত কাজে খুলনায় গিয়েছিল। খুলনা থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় কবলিত হয়। দুর্ঘটনার পর পরই মটর সাইকেল চালক (আশেয়ার দেবর) ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। দুর্ঘটনায় কবলিত হওয়ার পর তার ভেনেটি ব্যাগের মধ্যে ৩টি মোবাইল পাওয়া যায়। যার একটি আয়েশার দেবরের। একটি নষ্ট এবং অপরটি আশেয়ার হতে পারে বলে ওসি জানান। তিনি জানান, একতা পরিবহন, ৯০৪নং বাসটি পুলিশ হেফাজতে আছে। দুর্ঘটনায় কবলিত হওয়ার পর তার ভেনেটি ব্যাগের মধ্যে ৩টি মোবাইল পাওয়া যায়। যার একটি আয়েশার দেবরের। একটি নষ্ট এবং অপরটি আশেয়ার হতে পারে। আয়েশা তেরখাদা গ্রামের ইয়ারআলী সিকদারের কন্যা। গত ৫/৬ বছর আগে মোল্লাহাট উপজেলার দারিয়ালা গ্রামের মাসুম বিল্লাহ’র সাথে বিয়ে হয়। আয়েশা খাতুনের ৪ বছর বয়সী এক কন্যা সন্তান রয়েছে। তার নাম মালিহা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আয়েশার লাশ থানা পুলিশের হেফাজতে ছিল।

// ১৩-১০-২০১৪ //