16 জানুয়ারি 2017

বিএনপি নেতা বুলু মোল্লা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতার দাবি

খুলনানিউজ.কম:: তেরখাদা উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বুলু মোল্লা হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামীরা এলাকায় প্রকাশ্যে বিচরন করছে। তাদের অব্যাহত হুমকি ও আস্ফালনে মামলা বাদী ও স্বাক্ষীরা জীবনের নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আসামীরা মধুপুর বাজারে

পুলিশের সাথে একসাথে বসে চা খাচ্ছে, গল্পগুজব করছে এবং তাদের সন্ত্রাসী তৎপরতা চালাচ্ছে। এ নিয়ে জনমনে তীব্র ক্ষোভ ও আতংক বিরাজ করছে। বিএনপি খুলনা মহানগর ও জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে বিএনপি নেতা বুলু মোল্লা হত্যা মামলার আসামীদের প্রকাশ্যে অবস্থান এবং পুলিশের সামনে অবাধ বিচরনে তীব্র ক্ষোভ, হতাশা প্রকাশ ও নিন্দা জানিয়েছেন।

শাসক দলের ছত্রছায়ায় এবং ইন্ধনে হত্যা মামলার আসামীদের বেপরোয়া হয়ে ওঠাকে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতির নজির হিসেবে তারা আখ্যায়িত করেন। আসামীদের হুমকিতে মামলার বাদী এলাকা ছেড়ে আত্মগোপন করতে বাধ্য হয়েছেন। স্বাক্ষীদেরকে জমিতে যেয়ে ধান চাষ না করতে হুমকি দেয়া হয়েছে এবং এখন ধান কেটে নেবে বলে হুশিয়ার করেছে।

বিএনপি নেতারা অবিলম্বে হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামীদের গ্রেফতার করার দাবি জানিয়ে বলেছেন, পুলিশ প্রশাসনের মনে রাখা উচিৎ, ক্ষমতা কখনো চিরস্থায়ী নয়। চাকরিবিধি মেনে দুষ্টের দমন এবং শিষ্টের লালন না করে আওয়ামী দুর্বৃত্তদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়ার মানসিকতা তাদেরকে রক্ষা করতে পারবেনা। একদিন এই অপকর্মের সহায়তাকারী হিসেবে তাদেরকে আইনের কাঠগড়ায় দাড়িয়ে জবাবদিহি করতে হবে।

বিবৃতিদাতারা হলেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই, অধ্যাপক মাজিদুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শরীফ শাহ কামাল তাজ, কেসিসির মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. এস এম শফিকুল আলম মনা, ফখরুল আলম, আমির এজাজ খান, তেরখাদা থানা বিএনপির সভাপতি চৌধুরী কওসার আলী, সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল আলম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৭ মার্চ সন্ত্রাসী হামলায় বিএনপি নেতা বুলু মোল্লা নিহত হন। এ ঘটনায় ৩৫ জনকে আসামী করে তেরখাদা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। চলতি বছরের ২ সেপ্টেম্বর সিআইডি এ মামলা চার্জশিট দাখিল করে। চার্জশিটে শামসু মিনা, মোহাম্মদ কাজী, রফিকুল ইসলাম এসকে শামীম, এমদা মিনা সহ ২০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

// ২৯-১১-২০১৪ //