25 মার্চ 2017

পদ্মাসেতু নির্মিত হলে এ অঞ্চলের অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে; ড. মসিউর রহমান

160123-padda-mosuir-rahamanখুলনানিউজ.কম:: প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান বলেন, পদ্মাসেতু, রেল লাইন এবং খানজাহান আলী বিমান বন্দর নির্মিত হলে এ আঞ্চলের অর্থনীতির চাকা আরও গতিশীল হবে। দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী

করতে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হবে। উপদেষ্টা আজ দুপুরে খুলনার তেরখাদা উপজেলার ছাগলাদহ ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে পাউবো’র আওতায় বাস্তবায়নাধীন খুলনা জেলার ভুতিয়ার বিল এবং বর্ণাল সালিমপুর কোলাবাসুখালী বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিস্কাশন প্রকল্প (২য় পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের আঠারোবাঁকি নদী পুন:খনন ও  ভেন্ট ড্রেনেজ কাম ফ্লাসিং সুইস নির্মাণ কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

উপদেষ্টা বলেন, বর্তমান সরকার নদীর নাব্যতা রক্ষায় দেশব্যাপী নদী খনন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এটা আওয়ামী লীগ সরকারের অন্যতম কর্মসূচি। সরকার এ অঞ্চলের উন্নয়নে মহা পরিকল্পনা গ্রহণ করছে। এ প্রকল্পটি আমাদের সকলের এবং এর বাস্তবায়নে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হলে এ অঞ্চলের কৃষি উৎপাদন আরও বৃদ্ধি পাবে, জনগণের জীবন যাত্রার মান উন্নতি হবে এবং অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা আরও বৃদ্ধি পাবে। সরকারি খাল ও নদীগুলো দখলমুক্ত করতে হবে। যারা অবৈধভাবে দখল করে রেখেছেন তাদের এগুলো ছেড়ে দিতে হবে। অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে এলাকার সকল সমস্যার সমাধানে বর্তমান সরকার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলার কৃষক, শ্রমিক, সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন। তাঁরই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষি, শিক্ষা, খাদ্য, স্বাস্থ্য, যোগাযোগসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছেন। উপদেষ্টা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে আকঁড়ে ধরে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের উন্নয়নে কাজ করার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা, সাবেক সংসদ সদস্য মোল্ল্যা জালাল উদ্দিন, বাংলাদেশ ডিজেল প্লান্ট লি.-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আসিফ আনসারী, খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল, প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী জুলফিকার আলী হাওলাদার, এআরকে গ্রুপ-এর চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু। এতে সভাপতিত্ব করেন পাউবোর দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী  কে,এম আনোয়ার হোসেন।

উল্লেখ্য, সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে আঠারোবাঁকি নদীর প্রায় ৫০ কিলোমিটার পুনঃখনন করা হবে এবং এতে ব্যয় হবে প্রায় একশ ২৫ কোটি ৪০ লাখ টাকা। আগামী  ২০১৭ সালের জুন মাসে কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে।    

// ২৩-০১-২০১৬ //