27 মে 2017

গোপালগঞ্জে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

160628-rapeখুলনানিউজ.কম:: গোপালগঞ্জে ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। তাকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শামীম মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযোগসূত্রে জানা যায়, গোপালগঞ্জ শহরের

বেদগ্রাম ফড়িঙ্গাবাড়ী এলাকায় সোমবার সন্ধ্যায় দুই মেয়েকে বাড়িতে রেখে কাজে গিয়েছিলেন মা-বাবা। এ সুযোগে ঘরে প্রবেশ করেন বেদগ্রাম এলাকার বাচ্চু মোল্লার ছেলে শামীম মোল্লা। কিশোরীকে শাসন করতে তার বাবা তাকে পাঠিয়েছে বলে জানান শামীম। সেইসঙ্গে ওই কিশোরীর বড় বোনকে ঘরের বাইরে যেতে বলেন। এরপর ঘরে থাকা ওই কিশোরীর হাত-পা ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান শামীম।

বিষয়টি বাড়ির পাশের এক নারীকে জানায় ওই কিশোরী। কিশোরীর বাবা-মা তাকে অসুস্থ অবস্থায় গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত যুবক শামীমকে আটক করে।

থানায় নিয়ে এসে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বিষয়টি শুনে রাতের বেলা গোপালগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার আমীনুল ইসলাম হাসপাতালে গিয়ে মেয়েটির খোঁজ খবর নেন।

এ ঘটনায় রাতে নির্যাতিতার মা বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। নির্যাতনকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে তার স্বজন ও এলাকাবাসী।

গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ফারুক আহমেদ জানান, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর মেয়েটির চিকিৎসা দেওয়া হয় এবং ডাক্তারি পরীক্ষা করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

গোপালগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) আমীনুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তারা নির্যাতিতাকে হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

// ২৮-০৬-২০১৬ //