26 মার্চ 2017

পাকিস্তানে মাজারে বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭২

খুলনানিউজ.কম:: পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের শেহওয়ান এলাকার লাল শাহবাজ কালান্দর মাজারে আত্মঘাতী হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২ জনে। খবর বিবিসির। করাচি থেকে ১৯৩ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বঞ্চলে অবস্থিত শেহওয়ান এলাকার

ওই মাজারে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। হামলার পর ঘটনাস্থলেই ১২ নারী ও শিশুসহ অর্ধশতাধিক লোক নিহত হন। এছাড়া গুরুতর আহত শতাধিক ব্যক্তিকে উদ্ধার করেন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সিন্ধুর ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা সাব্বির সেতার জানান, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। এ হামলার জন্য প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ তথাকথিত ইসলামিক স্টেট ( আইএস) জঙ্গিদের দায়ী করেছেন।

শেহওয়ান এলাকার সহকারী এসপি বলেন, আত্মঘাতী সন্ত্রাসী মাজারের গোল্ডেন গেট দিয়ে প্রবেশ করেছে। প্রথমে একটি গ্রেনেড ছোড়ার পর আত্মঘাতী বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। তবে ছুড়ে দেয়া গ্রেনেডটি বিস্ফোরিত হয়নি। সন্ধ্যায় নামাজের পর মাজারে ধামাল (সুফি রীতি অনুযায়ী) অনুষ্ঠিত হচ্ছিল।

এই সময় পাকিস্তানের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা প্রচুর ভক্তবৃন্দের সমাগম ছিল। বৃহস্পতিবারেই সাধারণত এই মাজারে ভক্তের সমাগম বেশি ঘটে।

মাজার ও হাসপাতাল এলাকায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য লিয়াকত মেডিকেল কমপ্লেক্স জামশরো ও সাব-ডিস্ট্রিক্ট হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলায় আহতদের দ্রুত সহায়তার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সেনাবাহিনীর স্টাফ জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। প্রয়োজনে পাশের হায়দ্রাবাদে সেনা হাসপাতালেও আহতদের চিকিৎসার জন্য নিয়ে যেতে বলেছেন তিনি।

এদিকে মাজারে হামলার দায় স্বীকার করে আমাক নিউজ এজেন্সিতে বিবৃতি দিয়েছে সিরিয়াভিত্তিক আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১২ নভেম্বর পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের খুজদার জেলার শাহ নুরানি মাজারে আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ৫২ জন নিহত হন।

// ১৭-০২-২০১৭ //