24 মে 2017

খুলনায় সড়কজুড়ে ময়লার ভাগাড়

150922-khulna-dustখুলনানিউজ.কম:: যেখানে-সেখানে ময়লা আবর্জনার স্তূপ, অপরিচ্ছন্ন ড্রেন, মশার উপদ্রবসহ নানা সমস্যায় অতিষ্ঠ খুলনা মহানগরীর মানুষ। শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে দিনের বেলায়ও জমে থাকে বাসাবাড়ির আবর্জনা। দুর্গন্ধে এসব সড়কে নাকে-মুখে রুমাল চেপে চলতে হয় লোকজনকে। ময়লা অপসারণে

আধুনিক পদ্ধতি ও সিটি করপোরেশনের সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে দুঃসহ এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। খুলনা সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নগরীর কেডিএ এভিনিউ, মজিদ সরণি, খানজাহান আলী রোড, পিটিআই মোড়, শেরেবাংলা রোড, নিরালা মোড়সহ শতাধিক ডাম্পিং পয়েন্টে (ময়লা রাখার স্থান) বাসাবাড়ির ময়লা জড়ো করা হয়। কিন্তু পরিচ্ছন্ন কর্মীরা সময় মতো অপসারণ না করায় যত্রতত্র দুর্গন্ধ ছড়াতে থাকে।

রাতের মধ্যেই ময়লা অপসারণের সিদ্ধান্ত থাকলেও অব্যবস্থাপনার কারণে কিছু জায়গায় ৩-৪ দিন পর্যন্ত তা পড়ে থাকে। ফলে এলাকাভিত্তিক ডাস্টবিনের বদলে ডাম্পিং পয়েন্টের মাধ্যমে শহর পরিচ্ছন্ন রাখার কার্যক্রম বুমেরাং হয়ে গেছে।

সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে কয়েক বছর আগে এলাকাভিত্তিক ডাস্টবিনগুলো উচ্ছেদ করে সড়কের পাশে ১২৫টি ডাম্পিং পয়েন্টে ময়লা জড়ো করে সকাল ও দুপুর দুইবারে তা অপসারণের সিদ্ধান্ত হয়।

এদিকে বাসাবাড়ি থেকে ময়লা সংগ্রহের জন্য করপোরেশনের পৌর করের পাশাপাশি নগরবাসীকে মাসিক চুক্তিতে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের ২০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত দিতে হয়। নগরীর শেখপাড়ার বাসিন্দা মশিউর রহমান জানান, একই কাজে করপোরেশন ও পরিচ্ছন্ন কর্মীদের দুই দফায় টাকা দেওয়ার পরও সড়কজুড়ে ময়লার স্তূপ ভোগান্তির সৃষ্টি করছে।

কোথাও ড্রেনগুলোতে ময়লা জমে পানি চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে বেড়েছে মশার উপদ্রব। কেসিসির কনজারভেন্সি অফিসার মো. আনিসুর রহমান জানান, নগরীতে প্রতিদিন প্রায় ৫০০ টন বর্জ্য তৈরি হচ্ছে। করপোরেশনের ৩৯টি গাড়ি ও ৫০০ জনবল দিয়ে প্রতিদিন ৩০০ টন বর্জ্য সংগ্রহ করা হয়।

// ২২-০৯-২০১৫ //