26 মে 2017

মোটা স্বাস্থ্য অ্যাজমার ঝুঁকি বাড়ায়

খুলনানিউজ.কম:: সম্প্রতি অধিকাংশ মোটা ব্যক্তিরাই অ্যাজমায় আক্রান্ত হচ্ছেন। এ বিষয়টিকে গুরুত্বসহকারে দেখছে বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান। এ দু’য়ের মধ্যে কোনো সম্পর্ক আছে কি না গবেষণা ও সমীক্ষা চালাচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো। অ্যাজমা রোগীর সংখ্যা বাড়ার কারণ হিসেবে

ইনডোরে বা ঘরে বেশি সময় কাটানো, ধুলার জীবাণু, পোষা প্রাণীর বর্জ্য এবং এসবের মুখোমুখি হওয়াকে দায়ী করা হচ্ছে। এছাড়াও অ্যাজমা ও মোটা হয়ে হওয়ার মধ্যে কোনো জেনেটিক সম্পর্ক আছে কিনা সেই বিষয়টিও খুঁজে দেখা হচ্ছে।

গবেষণায় দেখা যায়, তাদের মধ্যেই স্বাস্থ্য বেশি বা মোটা হওয়ার প্রবণতা দেখা যায় যারা শারীরিক পরিশ্রমের পরবর্তে মানসিক শ্রম বেশি করেন এবং খাদ্যাভ্যাসে রয়েছে নিয়ন্ত্রণহীনতা। স্বাস্থ্য মোটা হয়ে যাওয়ার আরেকটি কারণ হিসেবে ধরা হয় শারীরিক ব্যায়ামের অভাবকে।

কয়েকটি সমীক্ষা দাবি, বডি মাস ইনডেক্স (উচ্চতা ও ওজনের হার) বেশি হলে অ্যাজমায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। জার্মান গবেষকরা বলছেন, মোটা ব্যক্তির ফুসফুসকে শরীরের চাহিদা পূরণের জন্য বাড়তি কাজ করতে হয়, যার ফলে অ্যাজমার সূত্রপাত ঘটে।

দেখা যায়, কেউ অনিয়ন্ত্রিত অ্যাজমা ও শ্বাসতন্ত্রের অন্য রোগে আক্রান্ত হলে তিনি শারীরিক পরিশ্রম বন্ধ করে দিচ্ছেন। যার ফলে অ্যাজমা প্রতিরোধে শারীরিক সক্ষমতা কমে যায়। তাই এ সময় শারীরিক পরিশ্রম ও নিয়ম মেনে ব্যায়াম করা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। ব্যায়ামের সময় গভীর শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে হয় ফলে শ্বাসতন্ত্রের গভীরতম অংশগুলোও সংকোচন-প্রসারণে অংশ নিতে পারে।

// ১৬-০৫-২০১৭ //