29 মে 2017

মাশরাফির সাথে হাত মিলিয়ে মুশফিকের চ্যালেঞ্জ!

170410-Mashmushiখুলনানিউজ.কম:: জাতীয় দল শ্রীলঙ্কা সফর থেকে ফিরেছে। সামনে তাদের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও তার আগে আয়ারল্যান্ড সফর। তবে এর আগে জাতীয় দলের খোলোয়াড়রা আপাতত ব্যাস্ত হয়ে পড়বেন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ নিয়ে। ১২ এপ্রিল শুরু হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদার

আসরটি। যেখানে এবার প্রথমবারের মতো একসঙ্গে, একই দলে খেলবেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও মুশফিকুর রহীম। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি গতবারের দল কলাবাগান ক্রীড়াচক্র ছেড়ে যোগ দিয়েছেন লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জে। অন্যদিকে মোহামেডান ছেড়ে জায়ান্ট এই ক্লাবটিতে মাশরাফির সাথে হাত মিলিয়েছেন মুশফিকও। রোববার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মুশফিক জানালেন নতুন দলে যোগ দিয়েছেন চ্যালেঞ্জ নিয়েই। এবারের ঢাকা লিগ শুরু ১২ এপ্রিল।

ক'দিন আগে হলেও বলা যেতো বাংলাদেশের দুই জাতীয় অধিনায়কই রূপগঞ্জে। কিন্তু টাইগারদের রঙিন পোষাকের অধিনায়ক টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটকে বিদায় বলে এসেছেন শ্রীলঙ্কায়। ছেড়েছেন কুড়ি ওভারের ক্রিকেটের নেতৃত্ব। তবে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক থাকছেন। অন্যদিকে মুশফিক সাদা পোষাকের অধিনায়ক। মানে টেস্টের নেতা তিনি। বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় দলের দুই ফরম্যাটের দুই অধিনায়ক প্রিমিয়ার লিগে খেলবেন একই দলে। খবরটা অনেক বড়ই বটে। প্রথমবারের মতো ঢাকা লিগে মাশরাফির সাথে খেলার রোমাঞ্চে এখনই ছুঁয়ে যাচ্ছে মুশফিককে, ‘আমার জন্য এটা অনেক বড় সম্মানের যে তার মতো একজনের সঙ্গে ঘরোয়া ক্রিকেটেও এক দলে খেলতে পারবো। আশা করব যেন এটা স্মরণীয় করে রাখতে পারি। আমরা চেষ্টা করব সেভাবেই পারফর্ম করতে।’

গতবার তৃতীয় স্থানে থেকে লিগ শেষ করেছিল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। কিন্তু আত্মপ্রকাশের পর থেকে প্রতিবারই ফেভারিট থাকে দলটি। এবার মুশফিক, মাশরাফিকে দলে নিলেও শক্তির দিক থেকে শীর্ষ তালিকায় সেই রূপগঞ্জ। মোহাম্মদ শরীফের মতো অভিজ্ঞদের সঙ্গে আছেন পিনাক ঘোষের মতো এক ঝাঁক তরুণ। এই দল নিয়ে শিরোপা জয় সম্ভব। মুশফিকও তাই মানেন। নতুন ক্লাবকে শিরোপা এনে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি ঝরল তার কণ্ঠে, ‘আমাদের ক্লাব অন্যান্য ক্লাবের মত শক্তিশালী না হলেও খারাপ নয়। সিনিয়র-জুনিয়র মিলিয়ে মোটামুটি ভালো দল হয়েছে। এবার মাঠে পারফর্ম করার পালা। আশা করি, লক্ষ্যপূরণ করতে পারব।’

তবে প্রিমিয়ার লিগে মুশফিকদের খুব বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ হচ্ছে না। মে মাসে আয়ারল্যান্ড সফরে ত্রিদশীয় সিরিজ। জুনে ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। তাই এই মাসের শেষ সপ্তাহে জাতীয় দল দেশ ছেড়ে ইংল্যান্ডের সাসেক্সে ক্যাম্প করবে। মাশরাফিরা দেশ ছাড়বেন ২৬ এপ্রিল। তার আগে যে ক’টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবেন, সেগুলোতে দলকে ভালো কিছু দেওয়ার প্রত্যাশা মুশফিকের। এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান বলে গেলেন, ‘যে কয়টি ম্যাচই খেলি, আমাদের অবদান রাখার অনেক সুযোগ আছে। কারণ ক্লাব অবশ্যই চাইবে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা ভালো করুক। আর জাতীয় দলে আমরা যেভাবে খেলছি, সেই ধারাবাহিকতাও এখানে ধরে রাখতে চাইব। চেষ্টা করব পেশাদারিত্ব নিয়ে খেলতে।
// ১০-০৪-২০১৭ //