এবারও কেসিসির নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় জোড়াগেটে বসবে কোরবানীর পশুহাট

আগামী ১৬ আগস্ট থেকে খুলনা মহানগরীর জোড়াগেটে কোরবানীর পশুর হাট বসাবে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি)। বিগত বছরগুলোর মতো এবারও নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বসবে খুলনা অঞ্চলের সবচেয়ে বড় এই পশুর হাট। গত ১৮ জুলাই কেসিসির বাজার স্থায়ী কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিভাবে হাট পরিচালনা করা হবে-তা নির্ধারণ করতে আগামী ২৫ জুলাই কেসিসির বিশেষ সভা আহ্বান করা হয়েছে। সিটি মেয়র ওই সভায় সভাপতিত্ব করবেন।
এর আগে হাট পরিচালনার জন্য তিন দফা দরপত্র আহ্বান করলেও কেউ সাড়া দেয়নি। সর্বশেষ বৃহস্পতিবারও দরপত্র বাক্স শূন্য ছিলো। দরপত্রে কেউ সাড়া দিবে না-এমন ধরে নিয়েই ১৮ জুলাই নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় হাট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।
কেসিসি’র বাজার শাখা থেকে জানা গেছে, পূর্বের রেওয়াজ অনুযায়ী তিন দফা দরপত্রে কেউ সাড়া না দিলে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় হাট পরিচালনা করা হয়ে থাকে। ২ জুলাই, ১১ জুলাই ও ১৯ জুলাই তিনদফা দরপত্র জমা দেওয়ার তারিখ ছিলো। কিন্তু তিনবারই দরপত্র বাক্স শূন্য থেকে যায়।
এদিকে হাটের প্রস্তুতির বিষয়ে আগামীকাল ২৫ জুলাই বিশেষ সভা ডেকেছে কেসিসি। ওই সভায় জেলা প্রশাসন, রেলওয়ে, বিদ্যুৎ বিভাগ, র‌্যাব, আনসারসহ সহযোগি সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন।
এদিকে গত পরশু কেসিসির বাজার স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর হাফিজুর রহমান মনি ও ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শামসুজ্জামান মিয়া স্বপনসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধানরা জোড়াগেট পাইকারী বাজার ঘুরে দেখেন। তারা আভ্যন্তরীণ ড্রেন থেকে কাদামাটি পরিষ্কার এবং দুটি র‌্যাম্পকে ব্যবহার উপযোগী করার নির্দেশ দেন। এছাড়া ছাগলের হাটের কাঁচা রাস্তায় ইটের সলিং এবং বাজারের ভেতরে টিনসেডগুলো খালি করার নোটিশ দেন।
গতবছর হাটে পশু ছাড়ার স্লিপ নিয়ে অনেক অব্যবস্থাপনা ছিলো। শেষে রাতে অনেক পশু স্লিপ ছাড়াই চলে যায়। ফলে কাক্সিক্ষত রাজস্বে অনেক কম আদায় হয়েছে। এ বছর যেন এ ধরনের ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।
কেসিসির কাউন্সিলর শামসুজ্জামান মিয়া স্বপন বলেন, এবার উন্নয়ন ব্যয় হাট খরচ থেকে আলাদাভাবে হিসেব করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। কারণ উন্নয়ন ব্যয় হাটের সঙ্গে যোগ দিলে ব্যয় অনেক বেড়ে যায়, মনে হয় হাট পরিচালনায় অনেক টাকা খরচ হলো। কিন্তু বাস্তবে পরিচালনা ব্যয় ১০ শতাংশের কম হয়। কিন্তু উন্নয়ন ব্যয় যোগ হলে বেড়ে যায়।
কেসিসির বাজার সুপার গাজী সালাউদ্দিন জানান, স্থায়ী কমিটির সভায় এবারও শেষ ৩দিন নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীর সংখ্যা বাড়ানো। হাটে পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ ব্যবস্থা, সিসি ক্যামেরা স্থাপন ও জাল টাকা শনাক্তকরণ মেশিন লাগানো হয়েছে। হাটে ভেটেরিনারি টিম গরুর চিকিৎসা দেবে। র‌্যাব ও পুলিশের পৃথক টিম হাট পাহারা দিবে।
হিসাব বিভাগ থেকে জানা গেছে, গতবছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে পশুরহাট থেকে রাজস্ব আদায় হয়েছিলো ২ কোটি ১০ লাখ ৩০ হাজার ৩৪৩ টাকা। গতবছর হাটে ৬ হাজার ৭৩৭টি গরু, ১ হাজার ৬৫৭টি ছাগল এবং ৯টি ভেড়া বিক্রি হয়েছিলো।

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : আবু বকর সিদ্দিক সাগর
এডিটর-ইন-চিফ : মাহমুদ হাসান সোহেল
নিউজরুম মেইল: khulnanews24@gmail.com এডিটর-ইন-চিফ ইমেইল : editor@khulnanews.com
Khulna Office:46 KDA Avenue, Jibon Bima Bhaban, 4th Floor, Khulna-9100, Dhaka Office: 102 Kakrail (1st Floor), Dhaka-1000, Bangladesh.
কপিরাইট © 2009-2020 KhulnaNews.com | URO Communition LTD -এর একটি প্রতিষ্ঠান